Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:৪৭
মসুলকে আইএসের দখলমুক্ত করতে অভিযান শুরু
মসুলকে আইএসের দখলমুক্ত করতে অভিযান শুরু
সাঁজোয়া যান নিয়ে অভিযান শুরু করেছে ইরাকি বাহিনী —এএফপি

ইরাকে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) দখলে থাকা মসুল শহরটিকে মুক্ত করতে অভিযান শুরু করেছে সরকারি বাহিনী। প্রায় ৩০ হাজার সরকারি সৈন্য এ অভিযানে অংশ নিয়েছে।

এ ছাড়াও এই অভিযানে আরও যোগ দিয়েছে কুর্দি পেশমার্গা এবং মার্কিন নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক মিত্র বাহিনী। গতকাল ভোর থেকে আইএসের অবস্থানগুলোর ওপর কামানের গোলাবর্ষণ শুরু হয়। শহরটির দিকে ট্যাঙ্ক বহরগুলো এগিয়ে যাচ্ছে। পথে এর মধ্যেই অন্তত পাঁচটি গ্রাম কুর্দি সৈন্যরা দখল করেছে। এদিকে মসুল শহরের দিকে এই অভিযানের প্রেক্ষাপটে শহরটির ভিতরে থাকা প্রায় ১৫ লাখ লোকের নিরাপত্তা নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। এজন্য ৬১ মিলিয়ন ডলারের অতিরিক্ত সহায়তা চেয়েছে জাতিসংঘ। তবে এ ব্যাপারে নিজেদের প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানিয়েছে ইরাকি কর্তৃপক্ষ।

২০১৪ সাল থেকেই এই উত্তরাঞ্চলীয় মসুল শহরটি আইএসের দখলে। মসুল শহরে অন্তত আট হাজার আইএসের যোদ্ধা রয়েছে বলে মনে করা হয়। একজন পেশমার্গা কমান্ডার বলেছেন—রামাদি, তিকরিত এবং বাইজির পতনের পর সেখানকার আইএস যোদ্ধারা পালিয়ে মসুলে অবস্থান নিয়েছে। ইরাকি নিরাপত্তা সূত্রগুলো বিবিসিকে জানিয়েছে, পেশমার্গা বাহিনী মসুলের পূর্ব দিকে হামদানিয়া জেলার কারাকোশ এবং বারটিলার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এখানে লড়াইয়ে আইএসের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে একজন সেনা কর্মকর্তা জানিয়েছেন। এই অভিযানের অংশ হিসেবে মার্কিন নেতৃত্বাধীন যৌথবাহিনীর যুদ্ধবিমানগুলো আকাশ থেকে আইএস অবস্থানগুলোর ওপর হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। মসুল হচ্ছে ইরাকে আইএসের দখলে থাকা সবশেষ বড় শহর। শহরটির প্রায় ৩৭ মাইল দক্ষিণে কাইয়ারায় একটি বিমানঘাঁটি থেকে এ আক্রমণ পরিচালিত হচ্ছে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, অভিযান শুরু হওয়ার পর শহরের জীবনযাত্রায় এখন পর্যন্ত লড়াইয়ের কোনো প্রভাব পড়েনি। দোকানপাট খোলা রয়েছে। আইএসের যোদ্ধারা শহর কেন্দ্র ছেড়ে উপকণ্ঠের দিকে লড়াইয়ে যোগ দিচ্ছে বলে জানা গেছে। একজন মার্কিন সামরিক কর্মকর্তা বলেছেন, মসুল পুনর্দখলের এই অভিযান হবে দুরূহ এবং এতে কয়েক সপ্তাহ পর্যন্ত লাগতে পারে। জুন মাস থেকেই মসুল পুনর্দখলের এই অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছিল সরকারি বাহিনী।

up-arrow