Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:০৫
মার্কিন হুমকিতে ভয় পাচ্ছে না আইসিসি
মার্কিন হুমকিতে ভয় পাচ্ছে না আইসিসি
হল্যান্ডের দ্য হেগ শহরে আইসিসির প্রধান কার্যালয়-বিবিসি

আফগানিস্তানে যুদ্ধাপরাধ সংঘটনের দায়ে মার্কিন সেনাদের বিচার করলে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার যে হুমকি দেওয়া হয়েছে তাতে ভীত নয় আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত (আইসিসি)। মার্কিন নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি উপেক্ষা করে আন্তর্জাতিক আদালত জানিয়ে দিয়েছে, তারা তাদের কাজে অনড় থাকবে। যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানে যুদ্ধাপরাধ করেছে। এই অভিযোগে আইসিসি যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। কিন্তু বিষয়টিকে সহজভাবে নিচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্র। গত পরশু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের উপদেষ্টা জন বোল্টন হুমকি দিয়েছেন, আইসিসি যদি মার্কিন কোনো নাগরিকের বিরুদ্ধে কোনো রকমের ব্যাবস্থা নেওয়া হয় তাহলে সংস্থাটির বিচারকদের বিরুদ্ধে অবরোধসহ গ্রেফতারও করা হবে। আর আইসিসিকে ভবিষ্যতে কোনো সাহায্য করা হবে না। তিনি আইসিসির গ্রহণযোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন।

২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে নাইন ইলেভেনের সন্ত্রাসী হামলার পর তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের নির্দেশে আফগানিস্তানে মার্কিন অভিযান শুরু হয়। আনুষ্ঠানিকভাবে আফগানিস্তানে তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধ অভিযান শেষ হয় ২০১৪ সালে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ বাহিনী এখনও আফগান সেনাদের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। গত বছর আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) প্রসিকিউটর ফাতৌ বেনসুদা বলেছিলেন, আফগানিস্তানে যে যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত হয়েছে তা ‘বিশ্বাস করার মতো যৌক্তিক ভিত্তি’ রয়েছে। মার্কিন সশস্ত্র বাহিনী ও মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র সদস্যরাসহ আফগান যুদ্ধে লিপ্ত সব পক্ষের সংশ্লিষ্টতা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি। উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র আইসিসির সদস্য নয়। ১৯৯৭ সালের ১৭ জুলাই রোম স্ট্যাচু গৃহীত হয়। এ নীতিমালা অনুযায়ী আন্তর্জাতিক আদালত গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছিল। তবে রোম স্ট্যাচু কার্যকর করতে ১২০টি দেশের স্বীকৃতির প্রয়োাজন ছিল। ১২০ দেশের স্বীকৃতির পর ২০০২ সালের ১ জুলাই থেকে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত তার কার্যক্রম শুরু করে। রয়টার্স

এই পাতার আরো খবর
up-arrow