Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:১৫
‘সক্ষম নয়’ আর্জেন্টিনা

এক বছর আগে টহল দেওয়ার সময় নিখোঁজ হয় আর্জেন্টিনার পারমাণবিক শক্তিসম্পন্ন সাবমেরিন এআরএ সান হুয়ান। সাবমেরিনটি ৪৪ জন ক্রু নিয়ে নিখোঁজ হয়। গত পরশু সেটির সন্ধান মিলেছে আটলান্টিক সমুদ্রের ২ হাজার ৯৫০ ফুট নিচে। কিন্তু এটির সন্ধান পেলেও দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন সমুদ্রের এত নিচ থেকে সাবমেরিনটি উদ্ধারের ‘ক্ষমতা তাদের নেই’। যদিও স্বজনরা যে কোনো মূল্যেই হোক এটি উদ্ধার করার দাবি জানাচ্ছেন। দেশটির নৌবাহিনীর কমান্ডার গেব্রিয়েল আত্তিস নিশ্চিত করেছেন, সাবমেরিনটি পুরোপুরি ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে। এর কাঠামো পুরোপুরি ভাঙাচোরা অবস্থায় পাওয়া গেছে। চারদিকে ছড়ানো-ছিটানো অবস্থায় পাওয়া গেছে এর ধ্বংসাবশেষ। সেগুলো ২২৯ ফুট পর্যন্ত দূরে ছড়িয়ে রয়েছে। তিনি বলছেন, সাবমেরিনটি সমুদ্রপৃষ্ঠে তোলা অসম্ভব নয়, তবে তা খুবই জটিল ব্যাপার। আর তার মানে হলো তা খুবই ব্যয়বহুল। মার্কিন একটি অনুসন্ধানকারী সংস্থা ওশান ইনফিনিটি এটি খুঁজে পায়। একটি আন্তর্জাতিক অনুসন্ধান উদ্যোগ ব্যর্থ হওয়ার পর আর্জেন্টিনা বেসরকারি এই সংস্থাটিকে নিয়োগ দিয়েছিল।

কী হয়েছিল সাবমেরিনটির? : এআরএ সান হুয়ান দক্ষিণ আমেরিকার একদম দক্ষিণাংশে একটি নিয়মিত টহল অভিযানে ছিল। পথে সেটির বৈদ্যুতিক ব্যবস্থায় গোলযোগ দেখা দেয়। বিষয়টিকে তখন যানটির ব্যাটারিতে ‘শর্ট সার্কিট’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছিল সাবমেরিন থেকে। সে সময় মিশন বাদ দিয়ে তখনই তাদের ফিরে আসতে বলা হয়েছিল। নৌবাহিনীর একজন মুখপাত্র গত বছর বলেছিলেন, সাবমেরিনটির ব্যাটারিতে পানি ঢুকেছিল; যার কারণে শর্ট সার্কিট হয়েছে। গত বছর ১৫ নভেম্বর সাবমেরিন থেকে জানানো হয় যে, সব ক্রু ভালো আছেন। এটাই ছিল সাবমেরিনটির সর্বশেষ বার্তা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow