Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৮ জুন, ২০১৬ ১১:৪৭
আপডেট : ২৮ জুন, ২০১৬ ১১:৫২
রোগী মরার আগে মৃত ঘোষণা, রণক্ষেত্র মেডিক্যাল কলেজ
অনলাইন ডেস্ক
রোগী মরার আগে মৃত ঘোষণা, রণক্ষেত্র মেডিক্যাল কলেজ

রোগী মারা যাওয়ার আগেই তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে। এই অভিযোগ তুলে হাসপাতালে ভাঙচুর চালান রোগীর আত্মীয়রা। আত্মীয়দের তাণ্ডবে সোমবার কার্যত রণক্ষেত্রে পরিণত হয় মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল।

খবর পেয়ে বহরমপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং চিকিৎসকে মারধর ও ভাঙচুরের ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে চারজনকে আটক করে। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সকালের ঘটনা নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চায়নি।

মৃতের পরিবার ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকালে বহরমপুর থানার রাধারঘাটের বাসিন্দা মিনতি ঘোষ (৪২) হৃদরোগে আক্রান্ত হন৷ তড়িঘড়ি পরিবারের লোকেরা মিনতিদেবীকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে৷ অভিযোগ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক এস টি দাস রোগীকে না দেখেই মৃত বলে ঘোষণা করেন এবং বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন৷ চিকিৎসকের পরামর্শমতো মিনতিদেবীর আত্মীয়রা তাকে নিয়ে বাড়ির পথে রওনা দেন৷

মৃতের ভাই অর্ঘ্য ঘোষ জানান, 'দিদিকে নিয়ে হাসপাতাল থেকে ১০০ মিটার আসতেই দেখি দিদি নড়েচড়ে উঠলেন। বিষয়টি নজরে আসতেই ফের দিদিকে হাসপাতালে নিয়ে যাই। দিদির দেহে প্রাণের অস্তিত্ব রয়েছে শুনে ওই চিকিৎসক হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসক শুরু করেন। চিকিৎসা শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই দিদি মারা যায়৷'

মৃতার অপর এক আত্মীয় জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক এস টি ঘোষের বিরুদ্ধে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ আনেন। এদিকে চিকিৎসকের গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই মৃতার পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়রা মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চড়াও হয়ে চিকিৎসক এস টি ঘোষকে মারধর করে। হাসপাতালের বহির্বিভাগে ভাঙচুরও চালায় তারা৷ খবর পেয়ে বহরমপুর থানা থেকে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে৷

বিডি-প্রতিদিন/ ২৮ জুন ১৬/ সালাহ উদ্দীন

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow