Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ১১ জানুয়ারি, ২০১৭ ২১:২০
আপডেট :
আমাকে বিমান দুর্ঘটনায় মেরে ফেলার চক্রান্ত হয়েছে: মমতা
দীপক দেবনাথ, কলকাতা

আমাকে বিমান দুর্ঘটনায় মেরে ফেলার চক্রান্ত হয়েছে: মমতা
ফাইল ছবি

বিরোধীদের দমিয়ে রেখে গোটা ভারতে নরেন্দ্র মোদির সরকার সন্ত্রাস চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন দেশটির পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বুধবার সন্ধ্যায় কলকাতার রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সামনে এক ধরনা মঞ্চ থেকে নোট বাতিলের সিন্ধান্তের প্রতিবাদ করে মমতা বলেন, ‘মোদি বাবু গায়ের জোরে এই কাজটা করেছেন। এর পিছনে কি অঙ্ক আছে, কত কোটি রুপির কেলেঙ্কারি আছে তা আগামী দিনে দেশের মানুষ জানতে পারবেন, যেদিন মোদি বাবু ক্ষমতায় থাকবেন না। এখন তো কারও কথা বলার অধিকার নেই, এজেন্সি দিয়ে সবাইকে ধমকানো ও চমকানো হচ্ছে। রাজনৈতিক কর্মী থেকে শুরু করে সরকারি কর্মকর্তা সবাই আজ এই মহা জরুরি অবস্থার সন্ত্রাসের শিকার হয়েছেন। দেশ জুড়েই একটা যুক্তিহীন সন্ত্রাস চলছে ও একটা অবাস্তব সন্ত্রাস চলছে’।

এদিনের ধরনা মঞ্চ থেকে তাকে হত্যা করার চক্রান্ত করা হয়েছে বলেও এদিন অভিযোগ করেন মমতা। তিনি বলেন, ‘বিমান দুর্ঘটনায় আমাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। কোনরকমে বেঁচে গেলাম। দু'জন পাইলটকে সাসপেন্ড করে দিল। এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল (এটিসি) বলছে, ওর দোষ, ও বলছে এর দোষ। পুলিশ তদন্ত করতে গিয়ে কোন কাগজ পাচ্ছে না। ভয়ানক ব্যাপার। দে ক্যান ডু এনিথিং, এভরিথিং। একটা রাজনৈতিক দল দেশটাকে পুরো বিক্রি করে দিল। দেশটাকে পরাধীন করে দিয়েছে’।

নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গত ৩০ নভেম্বর পাটনায় একটি সভা করে রাতের বিমানে কলকাতায় ফিরছিলেন মমতা ব্যানার্জি। রাত ৮টার দিকে কলকাতার নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা থাকলেও প্রায় ৪০ মিনিট আকাশে চক্কর কাটার পর বিমানটি অবতরণের অনুমতি পায়।

বেআইনি অর্থলগ্নীকারী সংস্থার রমরমা নিয়ে মমতা বলেন, আমাদের আমলে একটাও বেআইনি অর্থলগ্নীকারী সংস্থা হয়নি। সব সিপিআইএম’এর আমলে। সারদা হয়েছে সুজন চক্রবর্তীর হাত ধরে এবং রোজভ্যালি হয়েছে জ্যোতি বসুর আমলে। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই’কে ‘কনস্পিরেসি ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন’ বলে কটাক্ষ করে তৃণমূল নেত্রী বলেন, এরা ষড়যন্ত্র করে দেশকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। সিবিআইকে কাজে লাগিয়ে বিনা কারণে তৃণমূল নেতাদের আটক করা হয়েছে। সুদীপ বন্দোপাধ্যায় আদর্শ নিয়ে রাজনীতি করেছে, তাপস একজন অভিনেতা। ঋতুপর্ণা, প্রসেনজিৎ, শতাব্দীরাও অভিনয় করেন এরা প্রত্যেকেই টলিউড থেকে বলিউড, বলিউড থেকে হলিউড কোথাও না কোথাও জড়িয়ে রয়েছেন। এটা তাদের প্রফেশনের মধ্যে পড়ে। কি করেছে সুদীপ বন্দোপাধ্যায়, মুকুল রায়, শুভেন্দু অধিকারী, কি করেছে শোভন, কি করেছে ফিরহাদ? আমি সব জানি যে সিবিআই এখন স্বাধীন সংস্থা নেই। এটা এখন ‘কনস্পিরেসি ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন’ হয়ে গেছে। আর এটা চালান নরেন্দ্র মোদি’।

এদিকে এই ইস্যুতেই এদিন দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনে গিয়ে ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির হাতে তৃণমূল সাংসদরা একটি ডেপুটেশন তুলে দেন।


বিডি-প্রতিদিন/১১ জানুয়ারি, ২০১৭/মাহবুব

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow