Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২১:২২ অনলাইন ভার্সন
দিলীপের মন্তব্যে মুখ খুললেন অমর্ত্য সেন
অনলাইন ডেস্ক
দিলীপের মন্তব্যে মুখ খুললেন অমর্ত্য সেন

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষের কুরুরিপূর্ণ মন্তব্যের পর মুখ খুলেছেন নোবেলজয়ী ভারতীয় অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। রবিবার তিনি বলেন, ‘উনি যা ঠিক মনে করেছেন তা বলেছেন।

ওনার বলার অধিকার আছে। আপত্তির কোন কারণ নেই। সব কিছু নিয়ে আলোচনা হওয়া উচিত। যদি এ সব ওনার আলোচ্য বিষয় বলে মনে হয়, তবে অবশ্যই আলোচনা করা উচিত। ' খবর এবেলার।

এর আগে, শনিবার সন্ধ্যায় কলকাতায় এক অনুষ্ঠান থেকে অমর্ত্য সেনকে কুরুচিকর ভাষায় আক্রমণ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘আমাদের একজন নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন, বাঙালী...তিনি বেঁচে আছেন, আমরা খুব গর্বিত। তিনি কি করেছেন বাংলার কেউ বোঝে না, বিশ্বের কেউ বোঝে না। উনি নিজেও বোঝেন কি না আমার সন্দেহ আছে যে তিনি কি দিয়েছেন দেশকে। নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন, আমরা খুব খুশি, দুই হাত তুলে নাচছি।

তাঁকে নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ায় খুব কষ্ট হয়েছে তাঁর। কি করেছেন উনি? এই ধরনের লোকেরা আজ বাঙালির গর্ব। যাদের কোন মেরুদণ্ড নেই, চরিত্র নেই’।

বিজেপি সভাপতি আরও বলেন ‘একটা সময় ছিল যখন বাঙালীর বিজ্ঞজনদের ভয় পেতো তার চিন্তাভাবনা, স্বাভিমান, দুরদর্শিতা এবং কাউকে পরোয়া না করার মানসিকতার জন্য। কিন্তু এটা খুব দুর্ভাগ্য, বিষয়টি উল্টো হয়ে গেছে। এদেরকে (অমর্ত্য সেন) কেনা যায়, বিক্রি করা যায়, এদের চমকানো যায়... পায়ে পড়ে যাচ্ছে’।  

উল্লেখ্য, অর্থনীতিতে বিশেষ অবদানের জন্য ১৯৯৮ সালে নোবেল পদক পান এই ভারতীয় অর্থনীতিবিদ ও দার্শনিক। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একাধিক নীতির ঘোরতর বিরোধী অমর্ত্য সেন। সম্প্রতি নোট বাতিলের সিদ্ধান্তেরও বিরোধিতা করেন এই অর্থনীতিবিদ। কেন্দ্রীয় সরকারের চাপে পড়েই ২০১৫ সালে নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের পদ থেকে ইস্তফা দেন তিনি।

বিডি-প্রতিদিন/১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow