Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:২৬ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:২৭
কবুতর চোর সন্দেহে নির্মম নির্যাতনে প্রাণ গেল যুবকের
দীপক দেবনাথ, কলকাতা
কবুতর চোর সন্দেহে নির্মম নির্যাতনে প্রাণ গেল যুবকের
রানা দাস

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের খাস কলকাতাতে এবার গণপিটুনিতে মৃত্যুর অভিযোগ উঠল। শহরের নারকেলডাঙা এলাকায় কবুতর চোর সন্দেহে রানা দাস (২৬) ওরফে ছোটকা নামে এক যুবককে দাদার সামনেই ভাইকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ উঠেছে কয়েকজন যুবকের বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যেই নারকেলডাঙা থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। যদিও মূল অভিযুক্তরা পলাতক।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গত মঙ্গলবার রাতে নারকেলডাঙার নর্থ রোডের বাসিন্দা রানা’র সাথে কবুতর চুরি নিয়ে বিবাদ বাধে তার বন্ধুদের মধ্যে। ওইদিন রাতে তখনকার মতো বিবাদ মিটে গেলেও বুধবার সকালের দিকে ফের নতুন করে শুরু হয় বিবাদ। বাড়ির কাছেই রেললাইনের ধারে রানাকে তুলে নিয়ে গিয়ে চেন দিয়ে বেঁধে রেখে প্রায় ১০ জন যুবক প্রচণ্ড মারধর করে বলে অভিযোগ। ভাইকে মারধরের খবর শুনতে পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় রানার দাদা রবি দাস ও পরিবারের আত্মীয়রা। ভাইকে বাঁচাতে গেলে তাকেও মারধর করা হয়। রবি দাস কবুতর বাবদ ক্ষতিপূরণ দিতে চাইলেও তাতে শান্ত হননি অভিযুক্তরা। একসময় যুবকদের হামলার মুখে পড়ে সেসময় কোনরকমে পালিয়ে যান রবি ও তার আত্মীয়রা। কিছুক্ষণ পর ফিরে এসে তারা দেখেন রানা অচেতন অবস্থায় পড়ে আছে। এরপরই কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে হাসপাতালের চিকিৎসকরা। ঘটনার পরেই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। 

রানার পিশেমশাই স্বপন বসাক জানান, ‘রানাকে একটা পোস্টের সাথে পিঠমোড়া করে চেন দিয়ে বেঁধে রাখা হয়েছিল এবং বড় বড় কাঠের তক্তা দিয়ে প্রায় ৮ থেকে ১০ জন যুবক রানাকে মারধর করছিল।’ 

রানার দাদা রবি দাস জানান, ‘রেল লাইনের পাশেই বেশকয়েকজন যুবক বসেছিল। সেখানে আমার ভাইকে বেঁধে রেখে মারধর করা হচ্ছিল। আমি তাদের সকলকে আমার ভাইয়ের প্রাণ বাঁচানোর জন্য আবেদন জানাই, কিন্তু কেউই এগিয়ে আসেনি।’

বিডি-প্রতিদিন/০৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow