Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ১২:১২ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৫:৩৬
স্ত্রীকে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক পেটানোর ভিডিও ভাইরাল
অনলাইন ডেস্ক
স্ত্রীকে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক পেটানোর ভিডিও ভাইরাল

নিজের স্ত্রীকে ঘর থেকে টেনে রেব করে বেধড়ক মারধরের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। যেখানে নিজের স্ত্রীকে এলোপাথাড়ি কিল-ঘুষি মারছে একটি লোক। সেই সাথে সমানতালে গালিগালাজ। মারধরের এক পর্যায়ে বর্বরতার দৃশ্য সহ্য করতে না পেরে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসে। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বুনিয়াদপুরে। 

সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেই অবশ্য নড়েচড়ে বসেছে পুলিশ প্রশাসন। তবে অভিযুক্ত এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে।

পুলিশ জানিয়েছে, ৫৫ বছরের জীবন হালদার পেশায় মাছ ব্যবসায়ী। কয়েক দিন আগে তার চতুর্থ স্ত্রীকে এভাবেই মারধর করে সে। তবে এমনটা একেবারেই নতুন বা বিচ্ছিন্ন কোনও বিষয় নয় বলেই জানিয়েছেন প্রতিবেশীরা। এর আগের তিন স্ত্রীর মধ্যে প্রথম স্ত্রী মারা গেছে অনেক আগেই। অভিযোগ, মারধরের ভয়ে পালিয়ে গেছেন দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্ত্রী। বছর দুয়েক আগে বুনিয়াদপুরেরই বাসিন্দা পম্পা হাজরাকে ফের বিয়ে করে জীবন।

অভিযোগ, পম্পাকেও প্রায়ই মারধর করত জীবন। গত শনিবার দুপুরে রান্নায় নুন কম হওয়া নিয়ে ফের বচসা শুরু হয় তাঁদের। এর পরই তাঁকে মারধর করতে শুরু করে জীবন। রাস্তায় ফেলে মারধর করা হয় তাঁকে। স্থানীয়দের নজরে এলে, রক্ষা পান পম্পা। ঘটনাটির ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেন কয়েকজন। সঙ্গে সঙ্গে তা ভাইরাল হয়ে যায়। অভিযুক্ত জীবনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি ওঠে।

এই একই ঘটনা মাস দেড়েক আগেও ঘটেছিল পম্পার সঙ্গে। তাঁর হাত বেঁধে বাড়ির মধ্যেই বেধড়ক মারধর করেছিল জীবন। খবর পাওয়ার পরে গতকাল গভীর রাতে পুলিশ ও বুনিয়াদপুর পৌরসভার কাউন্সিলাররা ঘটনাস্থলে যান। খবর পেয়ে আগেভাগেই অবশ্য গা-ঢাকা দেয় জীবন হালদার। তবে এখন পর্যন্ত থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি বলেই জানিয়েছে পুলিশ। এমনকী পম্পা দাবি করেছেন, তিনি কোনো লিখিত অভিযোগই করবেন না। সূত্র: দ্য ওয়াল


বিডি-প্রতিদিন/১৭ জানুয়ারি, ২০১৯/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

up-arrow