Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১১:৪৬
আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৪:১৯

বাংলাদেশ ভবন রক্ষণাবেক্ষণে আরো ১০ কোটি রুপি দাবি

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশ ভবন রক্ষণাবেক্ষণে আরো ১০ কোটি রুপি দাবি
সংগৃহীত ছবি

শান্তিনিকেতনের বিশ্বভারতী প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ ভবন রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনার জন্য বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের হাতে ১০ কোটি রুপির একটি চেক তুলে দিয়েছে কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশনার তৌফিক হাসান। বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের ১০ কোটি রুপির দাবি প্রেক্ষিতেই গত ২৯ জানুয়ারি বাংলাদেশ সরকার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী এই চেক দেয়। তবে সুষ্ঠুভাবে ভবন রক্ষণাবেক্ষণে আরো ১০ কোটি রুপির দাবি জানিয়েছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।

বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের মতে, এই অর্থ গচ্ছিত রেখে যে সুদ পাওয়া যাবে তা দিয়ে রক্ষণাবেক্ষণ, কর্মী নিয়োগ ও গবেষণা সহায়ক রাখা সম্ভব নয়। একমাত্র ২০ কোটি রুপি গচ্ছিত রেখে যে সুদ পাওয়া যাবে সেটিকে করপাস ফান্ড হিসেবে ব্যবহার করা গেলে বাংলাদেশ ভবন সুন্দর ও সুচারুভাবে পরিচালনা করা সম্ভব হবে।

বাংলাদেশ ভবনের মুখ্য সমন্বয়ক অধ্যাপক মানবেন্দ্র মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, বাংলাদেশ ভবন উদ্বোধনের সময় বাংলাদেশ সরকারের কাছ থেকে ১০ কোটি রুপির প্রতিশ্রুতি পাওয়ার পরই তারা ভারত সরকারের কাছে ম্যাচিং গ্রান্ট হিসেবে সমপরিমাণ অর্থের আবেদন জানিয়েছিলেন। গত জুলাইয়ে সেই আবেদন জানানো হলেও এখন পর্যন্ত ভারত সরকার কোনও উত্তর দেয়নি। আর তাই অতিরিক্ত অর্থের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ মৌখিকভাবে বাংলাদেশ সরকারকে জানিয়েছেন।

গত সোমবার বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ শান্তিনিকেতন সফরে গেলে তাকেও বিষয়টি বিস্তারিতভাবে জানানো হয়েছে। বিশ্বভারতীর বক্তব্য, বাংলাদেশ সরকার যদি অতিরিক্ত অর্থ বরাদ্দের ব্যবস্থা করে তাহলে বাংলাদেশ ভবন পরিচালনা সহজ হবে। সেই মতো তারা বাংলাদেশ সরকারের কাছে আবেদন রাখতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে বিশ্বভারতীর দেওয়া জমিতে সাংস্কৃতিক বিনিময় কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে এই বাংলাদেশ ভবন। ভবনটি তৈরির পুরো ব্যয় ২৫ কোটি রুপি দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। বাংলাদেশ ভবনে রয়েছে একটি গ্রন্থাগার, একটি মিউজিয়াম, একটি গবেষণা ও ফ্যাকাল্টি কক্ষ, একটি কাফেটারিয়া এবং একটি অত্যাধুনিক অডিটোরিয়াম। সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী খালিদ বাংলাদেশ ভবন পরিদর্শন করে তার মুগ্ধতা জানিয়েছেন। ইতিমধ্যেই ভবনের মিউজিয়ামটি আরও সম্প্রসারণ করা যায় কিনা তা নিয়েও চিন্তাভানা চলছে বলে বিশ্বভারতী সূত্রে জানা গেছে।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল

 


আপনার মন্তব্য