Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ১ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩১ মে, ২০১৬ ২৩:৩১
সহিংসতায় গেল আরও ৩ প্রাণ
যশোরে আওয়ামী লীগ অফিসে বোমা, সাভারে সংঘর্ষ
নিজস্ব প্রতিবেদক
সহিংসতায় গেল আরও ৩ প্রাণ

ইউপি নির্বাচন নিয়ে সহিংসতায় প্রাণ গেল আরও তিনজনের। শেষ ধাপের ভোট নিয়েও সংঘাত-সহিংসতা চলছে।

গতকালও দিনাজপুর, ফরিদপুর, নাটোর, শরীয়তপুর ও ঢাকার সাভারে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সংষর্ঘ হয়েছে। এতে ৫৪ জন আহত হয়েছেন। যশোরের শার্শায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয়ে বোমা হামলা হয়েছে। এ ছাড়া কক্সবাজারের রামুতে ইউপি নির্বাচনপূর্ব সহিংসতায় আহত ২৪ জনের মধ্যে দুজন মারা গেছে। বান্দরবানে নিহত হয়েছেন একজন। সব মিলে ইউপি নির্বাচনে সহিংসতায় এ পর্যন্ত প্রাণ গেল ১২২ জনের। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদ—

যশোরে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর কার্যালয়ে বোমা হামলা : সোমবার রাতে শার্শা উপজেলার ডিহি ইউনিয়নের শাড়াতলা বাজারে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয়ে বোমা হামলা হয়েছে। ডিহি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান জানান, আওয়ামী লীগের অফিসটি এখন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এ কে এম ফজলুল হক বকুলের নির্বাচনী কার্যালয় হিসেবে ব্যবহূত হচ্ছে। রাত ৯টার দিকে কে বা কারা এসে সেখানে বোমা ছোঁড়ে। এতে কেউ হতাহত না হলেও অফিসের কিছুটা ঝলসে গেছে। সেখান থেকে বিস্ফোরিত বোমার জালের কাটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। বোমার শব্দে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বকুল জানান, প্রতিপক্ষ প্রার্থীর লোকজন এই বোমা হামলা করতে পারে। শার্শার গোড়পাড়া পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক বাবুল আকতার জানান, অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা, ষষ্ঠ ধাপের নির্বাচনকে সামনে রেখে এলাকায় আতঙ্ক ছড়াতেই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কক্সবাজার : জেলার রামুতে ইউপি নির্বাচনপূর্বে পৃথক হাঙ্গামায় আহত ২৪ জনের মধ্যে দুজন মারা গেছে। গত ২৬ ও ২৭ মে উপজেলার রশিদ নগর ও গর্জনিয়া ইউনিয়নে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এতে আহতদের মধ্যে দুজন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় ২৯ মে মারা যায়। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পাল্টাপাল্টি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। জানা গেছে, ২৮ মে নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির বিদ্রোহী ও বিএনপির প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে প্রচারণার চূডান্ত পর্যায়ে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে দুই পক্ষের অন্তত ২৪ জন কম-বেশি আহত হয়। আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিত্সা চলাকালে ২৯ মে সকালে ও সন্ধ্যায় চমেক হাসপাতালে মারা যায় রশিদ নগর কাহাতিয়া পাড়ার মৃত বদিউর রহমানের ছেলে নজির আহমদ ও গর্জনিয়ার স্কুল মুরা এলাকার মৃত মোহাম্মদ হোছেনের ছেলে মনজুরুল আলম। রামু থানার অফিসার ইনচার্জ প্রভাষ চন্দ্র ধর জানান, গতকাল পর্যন্ত মামলা হয়নি। কী কারণে সংঘর্ষ ও মারা যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বান্দরবান : বান্দরবানে জনসংহতি সমিতির সহযোগী সংগঠন পার্বত্য যুব সমিতির তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সুনীল চাকমার (৩৩) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল সকালে কুহালং ইউনিয়নের কিবুকপাড়া এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে পুলিশ যুব সমিতির সদস্য মুইগ্য মারমাকে আটক করেছে। লাশের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। জনসংহতি সমিতির নেতারা বলছেন, সুনীল চাকমাকে হত্যা করা হয়েছে। সুনীল চাকমা কিবুকপাড়ার প্রফুল্ল চাকমার ছেলে। কুহালং ইউনিয়নের নির্বাচনে জনসংহতি সমিতি সমর্থিত প্রার্থী পুশথোয়াই মারমার পক্ষ হয়ে কাজ করছিলেন সুনীল। প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে হত্যা করেছে বলে জনসংহতি সমিতির নেতারা অভিযোগ করেছেন। ফরিদপুর : সালথা উপজেলার বল্লভদি ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া গ্রামে গতকাল সকালে সদ্য বিজয়ী চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের বিজয় মিছিলে রং ছিটানো নিয়ে বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় চেয়ারম্যান বিষয়টি তাত্ক্ষণিক মিটিয়ে দেন। পরে দুপুর ১টার দিকে ফুলবাড়িয়া মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে বিজয়ী চেয়ারম্যানের খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে তার সমর্থকদের সঙ্গে বল্লভদি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউনুস মাতুব্বর (সদ্য বিজয়ী মেম্বার) এর সমর্থকদের মাঝে সংঘর্ষ বাধে। সাভার : বিএনপি ও আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংষর্ঘ হয়েছে। গতকাল সকালে সাভারের বনগাঁও ইউনিয়নের সাধাপুর কাজীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এতে দুই দলের প্রায় ১০ জন আহত হয়েছে। স্থানীয়রা জানিয়েছে, সকালে কাজীপাড়া এলাকায় বনগাঁও ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ ও বিএনপি চেয়ারম্যান প্রার্থীর লোকেরা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। বিএনপির অভিযোগ—বিএনপির প্রার্থীর ১০ জন কর্মী সাধাপুরের বিভিন্ন এলাকায় ব্যানার ফেস্টুুন ও পোস্টার লাগিয়ে নিজেদের বাসায় ফিরছিলেন। ফেনী : সদর উপজেলার কাজিরবাগ ইউনিয়নের ইউপি সদস্য প্রার্থী আবু ইউছুপ সুজনের মোটরসাইকেলে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল দুপুরে ইউনিয়নের রুহিতিয়া ফরায়েজি বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। আবু ইউছুপ সুজন জানান, ৪ জুন অনুষ্ঠেয় নির্বাচন উপলক্ষে গণসংযোগ শেষে বাড়ির সামনে তার ব্যবহূত মোটরসাইকেলটি তিনি রাখেন। এ সময় দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেলটিতে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। কুমিল্লা : মুরাদনগর উপজেলার শ্রীকাইল ইউনিয়নে স্বতন্ত্র দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মাঝে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। শ্রীকাইল ইউনিয়নের চন্দ্রনাইল গ্রামে। এ ঘটনায় পুলিশ গতকাল মামলায় অভিযুক্ত চেয়ারম্যান প্রার্থী হানিফ মেম্বারসহ দুজনকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই পাতার আরো খবর
up-arrow