Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৭ জুন, ২০১৬ ০২:০৭
বিবিসি বাংলাকে সালাহউদ্দিন
কবরে মানুষ যেভাবে থাকে সেভাবেই ছিলাম
প্রতিদিন ডেস্ক
কবরে মানুষ যেভাবে থাকে সেভাবেই ছিলাম

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলংয়ে অবস্থানরত বিএনপির সাবেক যুগ্ম-মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশে দুই মাস ‘বন্দী থাকা অবস্থায়’ তিনি ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে গেছেন। শিলংয়ে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সালাহউদ্দিন বলেন, তিনি স্বেচ্ছায় ভারতে আসেননি।

সালাহউদ্দিন দাবি করেন, বাংলাদেশ থেকে তাকে ‘অপহরণ’ করা হয়েছিল এবং যারা অপহরণ করেছে, তারাই তাকে হাত-পা ও চোখ বেঁধে ভারতে রেখে গেছে। কিন্তু কারা তাকে অপহরণ করেছে সে  বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলেননি বিএনপির এই নেতা। সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘দুই মাস আমি তাদের কাস্টডিতে (কারাগারে) ছিলাম। এর চেয়ে আর কী বলা যাবে!’ কিন্তু এ দুই মাস ওই কাস্টডিতে কেমন ছিলেন তিনি। জানতে চাইলে সালাহউদ্দিন বলেন, ‘যেভাবে মানুষ কবরে থাকে। অনেকটা ও-রকম। ’ প্রায় এক বছর ধরে শিলংয়ে আছেন সালাহউদ্দিন আহমেদ। ২০১৫ সালের মার্চ মাসের দিকে ঢাকার উত্তরার একটি বাসা থেকে নিখোঁজ হয়েছিলেন তিনি। তার দল বিএনপির তরফ থেকে অভিযোগ করা হয়েছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এর সঙ্গে জড়িত।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সুনির্দিষ্ট অভিযোগ করে বলেছিলেন, সালাহউদ্দিন আহমেদ র?্যাবের হেফাজতে আছেন। এর কিছুদিন পরই ভারতের মেঘালয়ে তার সন্ধান মেলে।

যদিও বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রী এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তরফ থেকে বিএনপির অভিযোগ নাকচ করে দেওয়া হয়।

বর্তমানে মেঘালয়ের একটি আদালতে সালাহউদ্দিনের বিরুদ্ধে ভারতে অনুপ্রবেশের মামলা চলছে। এ মামলার কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে আছে বলে তিনি জানিয়েছেন। সালাহউদ্দিন বলেন, ‘ভারতে আমি নিজ থেকে আসিনি। এটা সবাই জানে। এ বিষয়টি আদালতকে বোঝানোর চেষ্টা করব। আশা করি ন্যায়বিচার পাব। ’

বিএনপির এই নেতা জানান, গত এক বছরে তিনি ভারতে চিকিৎসা নিয়েছেন। এ জন্য মেঘালয় রাজ্য সরকারের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

up-arrow