Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ১০ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৯ জুন, ২০১৬ ২৩:২৯
দুর্ভোগ চরমে
খোঁড়াখুঁড়ি যানজটে অচল ঢাকা
নিজস্ব প্রতিবেদক
খোঁড়াখুঁড়ি যানজটে অচল ঢাকা
রমজানের শুরুতেই যানজটে অচল হয়ে পড়েছে রাজধানী ঢাকা। গতকাল দিনভর গাড়ি চলেছে ধীরগতিতে। ফার্মগেট এলাকা থেকে তোলা ছবি —বাংলাদেশ প্রতিদিন

রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি, বৃষ্টির পানিতে কাদাপানি আর তীব্র যানজটে অচল হয়ে পড়েছে রাজধানী ঢাকা। এতে নাকাল প্রায় জনজীবন। গতকাল সকাল থেকে পুরো নগরীতে ছিল এমন পরিস্থিতি। অপরিকল্পিত রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি, ময়লা-আবর্জনা দূরীকরণে অব্যবস্থাপনা ও রাস্তার ওপর অনিয়ন্ত্রিত গাড়ি পার্কিং এবং রমজানে বাড়তি আয়ের আশায় রাজধানীর বাইরে থেকে এসে ঢুকে পড়া রিকশাবহরের চলাচলের চাপ এ যানজট সৃষ্টির জন্য দায়ী বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। সদরঘাট, গুলিস্তান থেকে বিশ্বরোড পর্যন্ত প্রগতি সরণিতে অন্তত ১৪টি পয়েন্টে, মিরপুর গোলচত্বর, বিজয় সরণি ও ফার্মগেট এলাকায় সৃষ্টি হয়েছে যানজট। মহাখালী থেকে রমনা থানা পর্যন্ত চারটি পয়েন্টে এবং সায়েন্সল্যাব থেকে কাকরাইল পর্যন্ত দুটি পয়েন্টেও একই পরিস্থিতি ছিল বলে জানা গেছে। জানা গেছে, দুই মাস ধরে ডেসকো বৈদ্যুতিক ক্যাবল স্থাপনের নামে বনানীর ১ ও ৪ নম্বর সড়ক, গুলশান এভিনিউর ৯৩ ও ১৩৪ নম্বর সড়ক, শুটিং ক্লাবের সামনের সড়ক, প্রগতি সরণির কুড়িল চৌরাস্তা থেকে মধ্যবাড্ডা পর্যন্ত সড়ক খোঁড়াখুঁড়ির কাজ করছে। এ কাজ ৩১ মের মধ্যে ডেসকোর শেষ করার কথা ছিল। কিন্তু সেই কাজের অর্ধেকও শেষ হয়নি। ফলে প্রগতি সরণি সড়কে চলাচলকারী লাখ লাখ মানুষকে প্রতিদিন হতে হচ্ছে ভোগান্তির শিকার। লাগামহীন যানজট মাড়িয়ে যেতে হচ্ছে নিজ গন্তব্যে। মধ্যবাড্ডা সড়কের একাংশের বৈদ্যুতিক ক্যাবল স্থাপনের জন্য মাটি ভরাটের কাজ চলছে। ইট-বালু-খোয়া সড়কের অর্ধেক অংশজুড়ে থাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে ওই সড়কে। নতুন বাজার থেকে বসুন্ধরা পর্যন্ত প্রগতি সরণি সড়কের একাংশে নতুন করে শুরু হয়েছে খোঁড়াখুঁড়ি। অভিযোগ পাওয়া গেছে, মগবাজার থেকে শান্তিনগর পর্যন্ত ফ্লাইওভার নির্মাণে ত্রুটির কারণে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা আর বড় বড় গর্ত। যে কারণে কাকরাইল থেকে মালিবাগ রেলগেট পর্যন্ত গাড়িতে পৌঁছাতে একজন যাত্রীকে অপেক্ষা করতে হয় কমপক্ষে দেড় ঘণ্টা। মাত্রাতিরিক্ত যানজট, যত্রতত্র গাড়ি পার্কিংয়ের অব্যবস্থপনার কারণে মালিবাগ রেলগেট থেকে বারিধারা নতুন রাস্তা পর্যন্ত পৌঁছতে লাগছে অন্তত আড়াই ঘণ্টা। সায়েন্সল্যাব থেকে শাহবাগ মোড় পার হতে লেগেছে প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা। এদিকে কয়েক দিন ধরে সাতরাস্তা থেকে মগবাজার হলি ফ্যামিলি পর্যন্ত ফ্লাইওভারে বাস-ট্রাক চলাচলের পারমিট বন্ধ করে দেওয়াতেও নিচের দিকে রাস্তায় বেড়েছে চাপ। যেমন সৃষ্টি হচ্ছে যানজট তেমন বাড়ছে ভোগান্তিও। জানা গেছে, প্রগতি সরণির বিভিন্ন পয়েন্টে রয়েছে অন্তত আটটি ময়লা-আবর্জনার ডিপো। এগুলো রাস্তার ওপর রাখায় গাড়ি চলাচল করতে হচ্ছে সরু পথ বেয়ে। এ ছাড়াও মোড়ে মোড়ে ইউটার্ন, ট্রাফিক অব্যবস্থাপনা এবং রাস্তার ওপর অনিয়ন্ত্রিত গাড়ি পার্কিংয়ের কারণেও নগরবাসীকে পোহাতে হচ্ছে দুর্ভোগ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই পাতার আরো খবর
up-arrow