Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ১৩ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১২ জুন, ২০১৬ ২৩:০৪
সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা দিবাস্বপ্ন
সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা দিবাস্বপ্ন
মির্জ্জা আজিজুল

তত্ত্বাবাধয়ক সকারের সাবেক অর্থ উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেছেন, সাধারণ মানুষের ওপর করের বোঝা চাপিয়ে সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা হচ্ছে দিবাস্বপ্নের মতো। এমন অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে তিনি বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে এনবিআরের রাজস্ব আদায় লক্ষ্য অর্জনযোগ্য নয়। একদিকে অর্থমন্ত্রী বলছেন সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে। অন্যদিকে সাধারণ মানুষের ওপর করো বোঝা চাপাচ্ছেন। এটা সাংঘর্ষিক। উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, মেগা প্রকল্পে বরাদ্দ বাড়ানো হলেও গ্রামীণ ও কৃষি খাতে বরাদ্দ কমিয়েছে সরকার। বাজেটের লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ৭ দশমিক ২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করাটাও অসম্ভব বলে মনে করেন এই অর্থনীতিবিদ। মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, বেসরকারি খাতের চাকরিজীবীদের জন্য ই-টিআইএন বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাব প্রত্যাহার করা উচিত। এটা সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করবে। কেননা ছোট পদের চাকরিজীবীদের কেন টিআইএন নিতে হবে? এর পক্ষে কোনো যুক্তি নেই। এটা অযৌক্তিক। তবে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী যারা ১৬ হাজার টাকা স্কেল বা এর বেশি বেতন পান, তাদের জন্য রিটার্ন জমা বাধ্যতামূলক করার বিধানকে তিনি স্বাগত জানিয়েছেন। এতে সরকারি চাকুরেদের মধ্যে জবাবদিহির সংস্কৃতি চালু হবে। নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষকে সংকটে না ফেলে করফাঁকিবাজ ধরার ব্যবস্থা করতে হবে। অন্যথায় সরকারের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব হবে না বলে তিনি মনে করেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow