Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ১৫ জুন, ২০১৬ ২৩:৪৫
মডেল কন্যার রহস্যজনক মৃত্যু
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর মহাখালীতে সাবেক এসপি মতিউর রহমানের মেয়ে মাহাপারা রহমান শৈলীর (২৫) রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে শৈলীকে অচেতন অবস্থায় মহাখালী মেট্রোপলিটন হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শৈলীর স্বামী অভি চৌধুরীকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, অভি চৌধুরী নাট্যাভিনেতা। শৈলী মডেলিং করতেন। তিনি কয়েকটি পণ্যের বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেছেন। কয়েকটি নাটকও করেছেন। তারা মহাখালীর নিকেতন বাজার গেটের ১০৫/৩ নম্বর বাড়ির দ্বিতীয়তলায় থাকতেন। মৃতের বাড়ি বরিশালের বাকেরগঞ্জ থানার বিহারিপুর গ্রামে। শৈলীকে তার স্বামী অভি চৌধুরী প্রায়ই নির্যাতন করতেন বলে মৃতের পরিবার অভিযোগ করে।

শৈলীর মা সেলিনা রহমান বলেন, চার বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর মাঝে-মধ্যে দাম্পত্য কলহের জেরে অভি শৈলীকে শারীরিক নির্যাতন করত। এ বিষয়টি নিয়ে শৈলী অভিযোগ করেছিল। ঘটনার পর অভি মোবাইল ফোনে জানায়, তার মেয়ে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। তিনি মেয়ে হত্যার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন। পরিবার সূত্রে জানা গেছে, শৈলীর দুই বিয়ে হয়েছিল। প্রথম স্বামীর নাম মেরাজুল ইসলাম। ওই দম্পতির ৮ বছর বয়সী এক সন্তান রয়েছে। চার বছর আগে দ্বিতীয় বিয়ে করেন শৈলী। তার দ্বিতীয় স্বামীর নাম অভি চৌধুরী। পারিবারিক বিভিন্ন বিষয়ে অভির সঙ্গে শৈলীর ঝগড়া-বিবাদ লেগেই থাকত। বনানী থানার এসআই শ্রীদাম চন্দ্র রায় বলেন, শৈলীর বাবা অবসরপ্রাপ্ত এসপি মতিউর রহমান অভিযোগ করেছেন, অভি প্রায়ই শৈলীকে নির্যাতন করতেন। ধারণা করা হচ্ছে, স্বামীর নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে শৈলী আত্মহত্যা করেছেন। এ ব্যাপারে অভিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে পুলিশের কাছে অভি দাবি করেন, পারিবারিক কলহের জের ধরে শৈলী সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়নার ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন। এসআই আরও বলেন, মৃতের গলায় কালো দাগ ও এক হাতে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট হবে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।




up-arrow