Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ২০ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ জুন, ২০১৬ ০০:০২
লাঠি-বাঁশি দিয়ে খুলনা ও কুষ্টিয়ায় ডিফেন্স পার্টি
প্রতিদিন ডেস্ক

খুলনার ডুমুরিয়া এবং কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে গতকাল গ্রামবাসীর হাতে লাঠি ও বাঁশি তুলে দিয়ে পুলিশি উদ্যোগে ডিফেন্স পার্টি গঠন করা হয়েছে।

খুলনা থেকে নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, এক সময়কার চরমপন্থি অধ্যুষিত খুলনার ডুমুরিয়ার ২৩৫ গ্রামে ‘ডিফেন্স পার্টি’ গঠন করে মানুষের হাতে লাঠি ও বাঁশি তুলে দিয়েছেন খুলনা রেঞ্জের পুলিশের ডিআইজি এস এম মনির উজ-জামান। জঙ্গিবাদ, নাশকতা ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধে জনসম্পৃক্ততা গড়ে তুলতে দুপুরে ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদ চত্বরে সন্ত্রাস ও জঙ্গি তত্পরতাবিরোধী এক আলোচনা সভা শেষে তিনি সাধারণ মানুষের হাতে লাঠি ও বাঁশি তুলে দেন। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিফাত মেহনাজের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন খুলনা পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান হাবিব, সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির, ডুমুরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তাজুল ইসলামসহ র‌্যাব ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি জানান, গুপ্তহত্যা ও জঙ্গি প্রতিরোধের লক্ষ্যে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ডিফেন্স পার্টি গঠন করা হয়েছে। জেলা পুলিশের উদ্যোগে গতকাল দুপুরে শহরের বাসস্ট্যান্ডে এক আলোচনা সভার মাধ্যমে এ কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি গঠন শেষে পুলিশের পক্ষ থেকে সাধারণ মানুষের হাতে বাঁশের লাঠি ও বাঁশি তুলে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে পুলিশ সুপার প্রলয় চিসিম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়নুল আবেদিন, সহকারী পুলিশ সুপার সদর সার্কেল নুর আলম সিদ্দিক, কুমারখালী থানার ওসি জিয়াউর রহমানসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বক্তব্য রাখেন। পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, গুপ্ত হত্যাকারীরা কাপুরুষ। এরা চুপিসারে এসে খুন করে চলে যায়। তাই এদের প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি সাধারণ জনগণকে এগিয়ে আসতে হবে। পরে পুলিশ সুপার সাধারণ মানুষের মধ্যে বাঁশের লাঠি ও বাঁশি বিতরণ করেন।

up-arrow