Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ২০ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ২০ জুন, ২০১৬ ০০:০৪
যানজট নিরসনে ১৬ পয়েন্টে স্বেচ্ছাসেবক
------ওবায়দুল কাদের
নিজস্ব প্রতিবেদক

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আসন্ন ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন ও নিশ্চিন্ত করতে সরকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে ঢাকা থেকে বের হওয়ার ১৬টি যানজটপ্রবণ পয়েন্টে ১ হাজার রোভার স্কাউট সদস্য স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে যানজট নিরসনে কাজ করবে। এই স্বেচ্ছাসেবকরা তিন শিফটে পুলিশকে সহায়তা করবে। গতকাল দুপুরে সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন বিভাগের সভাকক্ষে যানজট নিয়ন্ত্রণে আয়োজিত সমন্বয় সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। সড়ক মন্ত্রী জানান, যানজট কমাতে ঈদের সময় সড়ক উন্নয়নের কাজও বন্ধ থাকবে। বিশেষ করে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও জয়দেবপুর-এলেঙ্গা চার লেন প্রকল্পের কাজ ঈদের ১০ দিন আগ থেকে বন্ধ করে দেওয়া হবে। সড়ক মন্ত্রী জানিয়েছেন, ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন ও যানজট সহনীয় করতে সরকার প্রতিটি জেলা ও উপজেলা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে। কোনো এলাকায় যানজট দেখা দিলে দ্রুত তা নিরসনে পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কর্মকর্তাদের। যাতে ঘরমুখো মানুষ কোনো রকম ভোগান্তিতে না পড়েন। তিনি জানান, ঈদে ঘরে ফেরা মানুষের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ পেলে বিআরটিএ ভিজিলেন্স টিম সঙ্গে সঙ্গে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহারের জন্য ১১টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুরুষ ও মহিলাদের জন্য অস্থায়ী টয়লেট নির্মাণ করা হবে। এছাড়া মহাসড়কের সিএনজি স্টেশন এবং আশপাশে স্কুলগুলোর টয়লেটও প্রস্তুত রাখা হবে। এর আগে সকালে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের উপস্থিতিতে চীন সরকারের অনুদানে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে নবম, দশম ও একাদশতম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু নির্মাণে সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর হয়। সড়ক পরিবহন বিভাগের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এমওইউ’তে  বাংলাদেশের পক্ষে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের এম এ এন ছিদ্দিক এবং চীনের পক্ষে কমার্শিয়াল কাউন্সিলর লি গোয়ানজান স্বাক্ষর করেন। এসময় সড়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) মো. বেলায়েত হোসেন উপস্থিত ছিলেন।




up-arrow