Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২১ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ২০ জুন, ২০১৬ ২৩:২৮
সবার আস্থা-ভালোবাসায় বসুন্ধরা সিটি শপিং মল
জিন্নাতুন নূর
সবার আস্থা-ভালোবাসায় বসুন্ধরা সিটি শপিং মল

রমজান শুরুর পর থেকেই ধানমন্ডির বাসিন্দা রুখসানা আমিনের দুই ছেলেমেয়ে ঈদের পোশাক কিনে দেওয়ার বায়না ধরেছে। কিন্তু রোজা রেখে দুপুরের তীব্র রোদে শপিং করতে যাওয়া যে কষ্টের তা ছোট ছেলেমেয়েদের বোঝানো সম্ভব নয়। অবশেষে গতকাল রুখসানা রাজধানীর পান্থপথের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বসুন্ধরা সিটি শপিং মলে শুরু করেন তার পরিবারের ঈদ কেনাকাটা। এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, বসুন্ধরা সিটি শুরু হওয়ার পর থেকে কোথাও আর কেনাকাটা করতে যাই না। শহরের কেন্দ্রবিন্দুতে হওয়ায় যাতায়াতে সুবিধা হয়। এ ছাড়া এখানে সব ব্র্যান্ডের পোশাক পাওয়া      যায়। ক্রেতাদের ভাষ্য হচ্ছে, নারী-পুরুষ শিশু-কিশোর ও তরুণ-তরুণীসহ উচ্চবিত্ত-মধ্যবিত্ত সব শ্রেণির ক্রেতার পোশাক বসুন্ধরা সিটি শপিং মলে পাওয়া যায়। আর সাধ্যের মধ্যে রুচিশীল দেশি-বিদেশি পোশাক পাওয়ায় ঈদের কেনাকাটায় ক্রেতাদের কাছে অন্যতম পছন্দের স্থান রাজধানীর বৃহৎ এই শপিং মল। আর ক্রেতার আস্থা ধরে রেখেছে বসুন্ধরা সিটি শপিং মল। ঈদ উপলক্ষে বসুন্ধরা শপিং মলের সাজসজ্জায় পরিবর্তন এসেছে। নিচতলায় এবারও ঈদ শপিংয়ের র‌্যাফেল ড্রর জন্য প্রাইভেটকারসহ অন্যান্য পুরস্কার প্রদর্শিত হচ্ছে। তবে ঈদের কেনাকাটাকে আরও আকর্ষণীয় করতে বসুন্ধরা সিটি শপিং মল কর্তৃপক্ষ পণ্য ক্রয়ে বিশেষ ঈদ স্ক্র্যাচ কার্ড অফার-২০১৬ এর ব্যবস্থা করেছে। এতে একজন ক্রেতা পণ্য ক্রয়ের পর যে স্ক্যাচ কার্ডটি পাবেন তা ঘষে তাত্ক্ষণিকভাবেই আকর্ষণীয় পুরস্কার জেতার সুযোগ পাচ্ছেন। এরই মধ্যে বেশ কয়েকজন পুরস্কার জিতেছেন। এই শপিং মলের নিচতলায় মেয়েদের বিভিন্ন কসমেটিকস পণ্যের পাশাপাশি বিক্রি হচ্ছে শিশুদের পোশাক, ছেলেমেয়েদের পাশ্চাত্য ঘরানার পোশাক। আছে স্মার্টেক্স ও ইয়েলোর মতো ব্র্যান্ডের দোকানও। ইয়েলোতে ছেলেমেয়েদের জন্য পাঞ্জাবি ও সালোয়ার-কামিজের পাশাপাশি মেয়েদের টিউনিক, টপস ও ছেলেদের টি-শার্ট ও শার্ট আনা হয়েছে। গরমের জন্য পাঞ্জাবিতে সুতি কাপড়ের ব্যবহার করা হয়েছে। ফিটেড কাট পাঞ্জাবিতে হাতের এমব্রয়ডারি কাজ, প্রিন্টের কাজ করা হয়েছে। মেয়েদের কামিজে ফ্লোরাল প্রিন্টের কাপড় ব্যবহার হয়েছে। এর সঙ্গে রাখা হয়েছে ট্রাউজার ও টিস্যু দোপাট্টা। মেয়েদের আরও আছে মোগল প্রিন্টের থ্রি-পিস ও এথনিক ড্রেস। লেভেল-২-তে পাওয়া যাচ্ছে ছেলেদের পাঞ্জাবি। লুবনানে এবার সুতি, সিল্ক, সিনথেটিক ও মিক্স কাপড়ে হালকা ও ভারী উভয় কাজের পাঞ্জাবি বিক্রি হচ্ছে। স্টাইপ দেওয়া ও একরঙা কাপড়ের পাঞ্জাবিগুলোর গলায় কাজ থাকছে। দাম ১৯০০ থেকে আড়াই হাজার টাকা। লেভেল-২ ও ৩ এ মেয়েদের সালোয়ার কামিজ পাওয়া যাচ্ছে। লেভেল-২ এর রংতুলির স্বত্বাধিকারী নজরুল ইসলাম জানান, এবার ঈদে মেয়েদের ভারতীয় সালোয়ার-কামিজের মধ্যে আছে  ‘বাজিরাও মাস্তানি’, ‘সারারা’, ‘প্লাজো গাউন’, ‘সিল্ক গাউন’ ইত্যাদি। ক্রেতাদের কাছে ভারতীয় চলচ্চিত্র ‘বাজিরাও মাস্তানি’-র নামের পোশাকের চাহিদা বেশি। এ পোশাকের বিশেষত্ব হলো উপরের অংশ কাতানের তৈরি। আর নিচের অংশ নেট ও মুনলাইট কাপড়ের তৈরি। দাম ১০ হাজার টাকা। লেভেল ফোরে বিক্রি হচ্ছে শাড়ি। ‘মনে রেখ শাড়ীজ’ ‘জ্যোতি’সহ বেশ কিছু শাড়ির দোকান। আলো ঝলমল দোকানে কাচের অপর প্রান্তেই শোভা পাচ্ছে পুঁতি, চুমকি, স্টোন বসানো বাহারি সব শাড়ি ও লেহেঙ্গা। লেভেল সিক্স-এ প্রদর্শিত হচ্ছে দেশি-বিদেশি জুতা। ব্র্যান্ডের দোকানের সঙ্গে স্থানীয় দোকানগুলোতেও ক্রেতার রুচির কথা মাথায় রেখে আনা হয়েছে রং-বেরঙের জুতা। আশা করা হচ্ছে ১৫ রোজার পর থেকে জুতার বিক্রি বাড়বে। এ ছাড়া বসুন্ধরা সিটি শপিং মলে ‘ইয়েলো’, ‘সোল ডান্স’, ‘এক্সট্যাসি’, ‘ফ্রি-ল্যান্ড’, ‘ইনফিনিটি’, ‘ওটুু, ‘ওয়েসট্যাক্স’, ‘ক্যাটস আই’-এর শোরুমে ছেলেদের শার্ট-প্যান্ট, টি-শার্ট, বেল্ট, জুতা, মেয়েদের টপস, জুতা, ব্যাগ, লেগিংস ইত্যাদি বিক্রি হচ্ছে।  তবে এ মার্কেটের মূল আকর্ষণ হচ্ছে লেভেল সেভেন। ‘দেশী দশে’র ১০টি দেশীয় ব্র্যান্ডের দোকান এই লেভেলে। দেশী দশে বিবিয়ানা, ক্রে-ক্রাফট, নিপুণ, সাদাকালো, বাংলার মেলা, দেশাল, রঙ ইত্যাদির দোকানে ক্রেতারা ঈদ পোশাকের পাশাপাশি অলঙ্কার, ঘর সাজানোর পণ্য ইত্যাদি কেনাকাটা সারছেন। শপিং মলের বিক্রেতারা জানান, আগামী সপ্তাহে পুরোপুরি ঈদ বাজার জমে উঠবে বলে তারা আশা করছেন।




এই পাতার আরো খবর
up-arrow