Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ২২ জুন, ২০১৬ ২৩:২৬
বাড়ি যাব টিকিট চাই
প্রথম দিনেই কমলাপুরে মানুষের ঢল
নিজস্ব প্রতিবেদক
বাড়ি যাব টিকিট চাই
কমলাপুর রেলস্টেশনে টিকিটের জন্য গতকাল ছিল উপচেপড়া ভিড় —রোহেত রাজীব

ঈদ যাত্রায় রেলের অগ্রিম টিকিট বিক্রির প্রথম দিনেই কমলাপুর স্টেশনে উপচেপড়া ভিড় ছিল টিকিট প্রত্যাশীদের। অনেকেই মঙ্গলবার রাত থেকে লাইনে দাঁড়ানো শুরু করেন। সাহরির পর থেকে ভিড় আরও বাড়তে থাকে।

গতকাল সকাল ৮টা থেকে ঈদ উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন জেলার ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়। একজন সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কাটতে পারবেন বলে রেলওয়ে থেকে জানানো হয়েছে। কমলাপুরের রেলের কাউন্টারগুলোতে সকালে উপচেপড়া ভিড় থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে তা কিছুটা কমতে থাকে। গত ১৫ জুন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এ দিন ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রির ঘোষণা দিয়েছিলেন। ঈদ এলেই অগ্রিম টিকিট সংগ্রহ করতে এক ধরনের যুদ্ধ শুরু হয় কাউন্টারগুলোতে। আর আগাম টিকিট বিক্রি মানেই স্টেশনগুলোতে যুদ্ধের দামামা বেজে ওঠার মতো। টিকিটের জন্য আগের দিন মধ্যরাত থেকে শুরু হয় যাত্রীদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা। আবার অনেকে শত কষ্ট করে কাউন্টারের সামনে গিয়েও নির্ধারিত দিনের টিকিট না পেয়ে খালি হাতে ফিরে যান। যারা সোনার হরিণ বাড়ি ফেরার টিকিট হাতে পেয়ে যান- তারা যেন স্বর্গজয়ের আনন্দে ভেসে বেড়ান। পার্বতীপুরের রাজু আহমেদ অগ্রিম টিকিটের জন্য সাহরির আগ থেকেই কমলাপুর স্টেশনে অবস্থান নিয়েছিলেন। তিনি গতকাল বলেন, পরিবারের অন্যরা চলে যাবে ১ জুলাই। মূলত তাদের জন্যই এসেছি। আর আমি যাব ঈদের আগের দিন। কিন্তু এত আগে আসার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, পরে যদি টিকিট না পাওয়া যায় তাই। রাজুর মতোই নজরুল নামে আরেক ব্যক্তি টিকিট কেটে ফেরার পথে বলেন, রাত সাড়ে ৯টায় আমি এসে লাইনে দাঁড়াই। দুজন মিলে সিরিয়াল ধরে এখন টিকিট পেলাম। খুবই ভালো লাগছে, এখন আর টেনশন নেই। হাতে চারটি টিকিট নিয়ে কাউন্টার থেকে ফিরে এভাবেই নিজের অনুভূতি জানাচ্ছিলেন নজরুলের সঙ্গী নিশীতা। যে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা ও কালোবাজারি রুখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে জানিয়ে কমলাপুর রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মজিদ বলেন, এখন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো। রেলের পরিচালনা বিভাগের করা সময়সূচি অনুসারে ১ জুলাইয়ের অগ্রিম টিকিট বিক্রি হচ্ছে আজ (বুধবার)। বৃহস্পতিবার পাওয়া যাবে ২ জুলাইয়ের টিকিট। আর ৬ জুলাই ঈদ ধরে এভাবেই পর্যায়ক্রমে অন্যান্য দিনের টিকিট বিক্রি হবে।




up-arrow