Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ জুন, ২০১৬ ০২:২৮
বিক্রির শীর্ষে ‘লোফার’
মোস্তফা মতিহার
বিক্রির শীর্ষে ‘লোফার’

পোশাক যত দামি, বৈচিত্র্যময় আর রুচিশীলই হোক না কেন- জুতাতেই ব্যক্তিত্ব ফুটে ওঠে। পোশাকের সঙ্গে যদি জুতার রুচি ফুটিয়ে তোলা না যায় তাহলে বাহারি রঙের মনকাড়া ডিজাইনের মূল্যবান পোশাকটিও হয়ে যায় মূল্যহীন।

তাই ফ্যাশনপ্রিয়দের চাহিদা পূরণে রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের জুতার মার্কেটগুলো পিছিয়ে নেই।

পুরুষ ও মহিলাদের পাশাপাশি এই এলাকার দোকানগুলোতে রয়েছে মনকাড়া সব কিডস কালেকশন। পুরুষের সু, স্যান্ডেল, স্লিপার, স্পোর্টস সু, সাইকেল সু, ফিতাওয়ালা চটি, স্লাইস, টমস, বেঞ্চ, কাবলি স্যান্ডেল, চায়নিজ সুপ্রা, ক্যাজুয়াল সু, ফরমাল সু ও কেডসের পাশাপাশি মহিলাদের জন্য রয়েছে আকর্ষণীয় ডিজাইনের হাই হিল, সেমি হিল, ফ্ল্যাট স্যান্ডেলসহ বিভিন্ন ধরনের জুতা। বিশেষ ধরনের ড্রেসের মতো বিশেষ নামের ও ধরনের জুতারও ব্যাপক চাহিদা রয়েছে এবারের ঈদে। এর মধ্যে ‘লোফার’ নামের জুতাটি এবারের ঈদে জুতানুরাগীদের ব্যাপক সমাদর অর্জন করেছে। এলিফ্যান্ট রোডের ‘সাম্পান’-এর মালিক রাশেদ খান জানান, অন্য বছর এ সময়ে কাস্টমারদের প্রচুর ভিড় থাকলেও এবার এখনো খুব একটা আনাগোনা নেই। বেচাকেনা কম বলে ঈদ উপলক্ষে বিশেষ ধরনের অফার চালু করেছে ‘সাম্পান’। যার মধ্যে ২ হাজার টাকার জুতা কিনলে ১০% ক্যাশব্যাক ও সাড়ে ৩ হাজার টাকার জুতা কিনলে ১৫% ক্যাশব্যাক দিচ্ছে তারা।

তিনি জানান, দেশের চাহিদা মিটিয়ে জাপানেও তাদের জুতা রপ্তানি করা হয়ে থাকে। ফিতাওয়ালা চটি, বাচ্চাদের নাগরা, লেডিসদের ফ্ল্যাট জুতা, ডিজেল সু, সেমি হিল, পেনসিল হিল ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের ফ্যাশনেবল জুতার সমাহার রয়েছে ‘সাম্পান’-এ।

অন্যদিকে ‘শাইনি’ নিয়ে এসেছে নিজস্ব সব ব্র্যান্ড। বাচ্চাদের পাশাপাশি মহিলাদের বিভিন্ন ধরনের কালেকশনও রয়েছে এই দোকানটিতে। শাইনির এই আউটলেটে মহিলাদের জন্য রয়েছে স্টোন ও কারচুপির ডিজাইনের নতুন সব কালেকশন। এখানে মহিলাদের বিভিন্ন ধরনের জুতা পাওয়া যাচ্ছে ৭৯০ থেকে ১৯৯০ টাকায়। দোকানের ম্যানেজার সরওয়ার হোসেন জানান, তাদের প্রোডাক্ট নিজস্ব হলেও সোল্ড আনা হচ্ছে চায়নার। ৮৯০ থেকে ২৭৯০ টাকায় পুরুষের সব ধরনের জুতা পাওয়া যাচ্ছে শাইনির এই আউটলেটে।

জুতার জগতে শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ড ‘বাটা’র বিভিন্ন আউটলেটে এবার বিভিন্ন ধরনের নতুন ও বৈচিত্র্যময় ডিজাইনের সমাহার ঘটানো হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে সামার, চাপলিশ, স্পোর্টস স্যান্ডেল, উইন ব্যানার, ক্যাজুয়াল সু। বাটার এলিফ্যান্ট রোড আউটলেটের বিক্রয় কর্মী হেলাল জানান, তাদের এখানে ক্যাজুয়াল সু-ই বেশি বিক্রি হচ্ছে। এখানে সামার পাওয়া যাচ্ছে ৫৯০ থেকে ৭ হাজার ৫০০ টাকায়, চাপলিশ রয়েছে ৭৯০, ৮৯০ ও ৯৯০ টাকায়। এই আউটলেটে স্পোর্টস সু পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ৫০০ থেকে ২ হাজার ৯৯০ টাকায়, আর ক্যাজুয়াল সু রয়েছে ৯৫০, ১ হাজার ১৯০, ২ হাজার ৯৯০, ৭ হাজার, ৮ হাজার ও ১০ হাজার টাকায়। বিকাশে জুতা ক্রয় করলে ১০% ক্যাশব্যাক দিচ্ছে বলেও জানান বাটার বিক্রয় কর্মী হেলাল।

এই এলাকার আরও একটি জুতার দোকান ‘খড়ম’-এ লোফার পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার থেকে ৮ হাজার ৫০০ টাকায়, স্লাইস পাওয়া যাচ্ছে ৫০০ থেকে ১ হাজার ২৫০ টাকায়, বিভিন্ন ধরনের কেডস পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকায়। তাদের দোকানে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে ‘লোফার’ নামের জুতাটি। বিক্রয় কর্মী আরও জানান, তাদের কালেকশনে বিভিন্ন ডিজাইনের ক্যাজুয়াল সুও রয়েছে। তবে ঈদের সময় ক্যাজুয়াল সু খুব একটা বিক্রি হয় না।

জিলন শপ-এ স্পোর্টস সু পাওয়া যাচ্ছে ২ হাজার ৪৯০ টাকায়, ক্যাজুয়াল সু পাওয়া যাচ্ছে ২ হাজার ৩৯০ টাকায়, বিভিন্ন ধরনের স্যান্ডেল পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ৮৯০, ২ হাজার ১৯০,  ২ হাজার ৯৯০ টাকায়, ম্যান ফিশকেস পাওয়া যাচ্ছে ২ হাজার ৪৯০ টাকায়, অ্যালবার্টা পাওয়া যাচ্ছে ২ হাজার ৯৯০ টাকায়, ‘জাবরিনি’ নামে মেয়েদের জুতা পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ৩৯০ থেকে ২ হাজার ৮৯০ টাকায়, হাই হিল পাওয়া যাচ্ছে ২ হাজার ৮৯০ থেকে শুরু করে ৮ হাজার ৯৯০ টাকার মধ্যে। অন্যদিকে ‘লোটো’র এলিফ্যান্ট রোডের আউটলেটে ক্যাজুয়াল সু পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ৪৯০ থেকে ৪ হাজার ৫০০ টাকায়, লাইফস্টাইল পাওয়া যাচ্ছে ২৯০ থেকে ৮৯০ টাকায়, কেডস পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ২৯০ থেকে ২ হাজার ৪৯০ টাকায়, স্লিপার রয়েছে ৫৯০ থেকে ১ হাজার ৮৯০ টাকার মধ্যে, স্পোর্টস স্যান্ডেল পাওয়া যাচ্ছে ৯৯০ থেকে ২ হাজার ৪৯০ টাকার মধ্যে। তাদের দোকানের বিক্রি আশাব্যঞ্জক বলে জানালেন এই দোকানটির বিক্রয় কর্মী সোহেল। মিস সু নামের একটি দোকানে বাচ্চাদের জুতার রয়েছে বিভিন্ন ধরনের সমাহার। এখানে বাচ্চাদের জুতা পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ৫০ থেকে শুরু করে ১ হাজার ৮৫০ টাকায়, মহিলাদের জুতা পাওয়া যাচ্ছে ৮৫০ থেকে ১ হাজার ৬৫০ টাকায়। ফ্যালকন সু-এর আউটলেটে স্পোর্টস স্যান্ডেল পাওয়া যাচ্ছে ২ হাজার টাকায়, কাবলি স্যান্ডেল ২ হাজার থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকায়, চটি স্যান্ডেল ১ হাজার ৬৫০ টাকায়, স্যান্ডেল সু ১ হাজার ৬৫০ টাকায়, স্যান্ডেল ১ হাজার ২৫০ থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বিক্রয় কর্মী এবারের বাজেট নিয়ে নাখোশ। তিনি জানান, বাজেট বৃদ্ধির কারণে ৭০০ টাকার জুতার দাম বৃদ্ধি হয়ে ১ হাজার ১০০ টাকা হয়েছে। আর বর্ধিত এই দামে জুতা বিক্রি করতে তাদের অনেক বেগ পেতে হচ্ছে। এবারের বাজেট জুতা ব্যবসায়ীদের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে বলেও জানান নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই জুতা বিক্রেতা। উন্নতমানের কাঁচামালে নতুন ডিজাইনের জুতা ফ্যাশনপ্রিয়দের ঈদের আনন্দকে অনেক বেশি রঙিন করে তুলবে বলে মনে করেন এলিফ্যান্ট রোড এলাকার জুতার দোকানিরা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow