Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ২৪ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ২৪ জুন, ২০১৬ ০১:৩৩
আশুলিয়ায় মায়ের সামনে ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা
সাভার প্রতিনিধি

ঢাকার আশুলিয়ায় মায়ের সামনে সুমন শিকদার (৩০) নামের এক গার্মেন্ট ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। তিন ভাই মিলে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ধারালো চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে ও পায়ের রগ কেটে ওই ব্যবসায়ীর মৃত্যু নিশ্চিত করে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। বুধবার দিবাগত রাত পৌনে ২টার দিকে আশুলিয়ার কাঁঠালতলা এলাকায় ব্যবসায়ীর নিজ বাড়ির সামনে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে অভিযান চালালেও এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি। নিহত ব্যবসায়ীর মা আনোয়ারা বেগম বলেন, রাতে তার ছেলে সুমন বাসায় ঘুমাচ্ছিলেন। রাত পৌনে ২টার দিকে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে সুমন বাইরে গেলে ওত পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা তাকে টেনে-হিঁচড়ে বাড়ির সামনে একটি সড়কে নিয়ে যায়। তিন ভাইসহ ৮-১০ জন সন্ত্রাসী তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। এ সময় সুমনের চিৎকারে তার মা এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। পরে মায়ের সামনেই তিন ভাই ও তাদের সহযোগীরা মিলে সুমনকে কুপিয়ে ও পায়ের রগ কেটে মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় নারী ও শিশুস্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে আশুলিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে হত্যাকারীদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালায়। কিন্তু পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। নিহত ব্যবসায়ীর মা অভিযোগ করে বলেন, বেশ কয়েক দিন ধরে একই এলাকার ফিরোজের তিন ছেলে সন্ত্রাসী এরশাদ, নজরুল ও জহির তার ছেলে সুমনের কাছে চাঁদা দাবি করে আসছিল। সুমন চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে। এ কারণে বুধবার দিবাগত গভীর রাতে সন্ত্রাসীরা সুমনকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ব্যাপারে নারী ও শিশুস্বাস্থ্য কেন্দ্রের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মোহাম্মদ শামিম জানান, নিহতের কাঁধে, পিঠে, পেটে ও পায়ে একাধিক ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। দেখে মনে হয়েছে তাকে চাপাতি, রামদা কিংবা চায়নিজ কুড়াল দিয়ে কোপানো হয়েছে। তবে হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই ওই যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে তিনি জানান। এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কাদির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করেছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢাকা মেডিকেলের মর্গে পাঠানো হয়েছে। সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। তবে হত্যাকারীদের বাড়ি থেকে রক্তমাখা কাপাড় ও চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় একটি মামলা হয়েছে।




up-arrow