Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩০ জুন, ২০১৬ ০২:২৪
ঈদ ছুটিতে ভরসা অনলাইন সার্ভিস
এটিএম, মোবাইলে ভোগান্তির শঙ্কা
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঈদের আগে আজই শেষ হচ্ছে ব্যাংকিং কার্যক্রম। বাণিজ্যিক ও শিল্প শাখা আগামী ২, ৩, ৪ জুলাই খোলা থাকলেও দেশের অন্য শাখাগুলো বন্ধ থাকবে। ঈদের ছুটিতে দেশের সব ব্যাংক শাখা বন্ধ থাকায় নগদ অর্থের লেনদেনে ভরসা হিসেবে থাকছে অনলাইন ব্যাংকিং। ছুটির এ সময় সাধারণ গ্রাহকদের এটিএম বুথ, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে লেনদেন করতে হবে। তবে এ ক্ষেত্রে গ্রাহকরা নানা ভোগান্তির আশঙ্কা করছেন। যদিও ব্যাংকগুলোর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ঈদ উপলক্ষে বিশেষ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকও ঈদে অনলাইন ব্যাংকিংয়ে পর্যাপ্ত অর্থ সরবরাহ ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বলেন, ঈদের ছুটিতে মোবাইল ব্যাংকিং ও এটিএম বুথে পর্যাপ্ত অর্থ সরবরাহ করতে সব ব্যাংককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তায় বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ব্যাংকগুলোকে কঠোর পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া শিল্প ও বাণিজ্যিক এলাকার শাখাগুলো ২, ৩ ও ৪ জুলাই খোলা থাকবে। গ্রাহকদের কোনো সমস্যা হবে না।

জানা গেছে, ব্যাংক গ্রাহকদের বড় অংশ এখন লেনদেন হয় অনলাইন সিস্টেমে। সারা দেশে বিশেষ করে গ্রামীণ ব্যাংকিং ব্যবস্থা এখন অনেকটা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের ওপর নির্ভরশীল। শহর এলাকায় বেশির ভাগ গ্রাহক এটিএম বুথ ও ফার্স্ট ট্র্যাকের মাধ্যমে টাকা জমা ও উত্তোলন করেন। কিন্তু ঈদ উপলক্ষে চাপ বেশি থাকায় এটিএম বুথগুলোতে টাকার স্বল্পতা, কারিগরি সমস্যা, নেটওয়ার্ক সমস্যার ভোগান্তিতে পড়েন। এরই মধ্যে নেটওয়ার্ক সমস্যা ও টাকা সমস্যায় অনেক গ্রাহক ভোগান্তির অভিযোগ করেছেন। গতকাল ঢাকার ব্যাংক এশিয়ার সব এটিএম বুথে প্রায় দুই ঘণ্টা নেটওয়ার্ক বন্ধ ছিল। ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের মতিঝিলের কয়েকটি বুথে অর্থ না থাকার অভিযোগ করেছেন অনেক গ্রাহক। অন্যদিকে অনলাইন পদ্ধতির মোবাইল ব্যাংকিংয়ে সাধারণ গ্রাহকরা সবচেয়ে বেশি লেনদেন করেন। বর্তমানে প্রতিদিন মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে কয়েকশ কোটি টাকা লেনদেন হয়। বর্তমানে দেশের রেমিট্যান্সের একটি বড় অংশ আসে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে। কিন্তু দীর্ঘ সময় ব্যাংক বন্ধ থাকায় মোবাইল ব্যাংকিংয়ের এজেন্টগুলো বন্ধ থাকবে। ফলে এই সময় গ্রাহকরা টাকা উত্তোলন করতে পারবেন কিনা- তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। কারণ ব্যাংক বন্ধ থাকলে কোনো এজেন্ট ব্যাংক থেকে মোবাইলে টাকা লোড করতে পারবেন না। সেটা না পারলে গ্রাহকও টাকা পাবেন না।

এ বিষয়ে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের ডিএমডি আবুল কাশেম মো. শিরিন বলেন, ঈদের ছুটির মধ্যেও আমরা প্রায় ৮০ ভাগ শাখা খোলা রাখব। এটিএম বুথ ও মোবাইল এজেন্টদের টাকা সরবরাহ করতে ঈদের দিনেও বিশেষ ব্যবস্থায় ভল্ট থেকে টাকা সরবরাহ করা হবে। আশা করি কোনো গ্রাহকদের কোনো সমস্যা হবে না।

up-arrow