Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২২ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : শনিবার, ২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২ জুলাই, ২০১৬ ০০:২৮
আকাশপথে টিকিট নেই
নিজস্ব প্রতিবেদক

আকাশপথে টিকিট নেই। অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটের দেশি-বিদেশি কোনো ফ্লাইটের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। সংশ্লিষ্টরা বলছে, ঈদের কারণে চাপ বেড়েছে আকাশ ভ্রমণে। অভ্যন্তরীণ রুটে ঈদুল ফিতরের এক সপ্তাহ আগে ও পরের টিকিট ইতিমধ্যে শেষ হয়ে গেছে। বাড়তি মূল্যের টিকিটও যাত্রীরা সাগ্রহে লুফে নিচ্ছেন। বেসরকারি কয়েকটি এয়ারলাইন্স সংস্থা অতিরিক্ত ফ্লাইট যুক্ত করে যাত্রীদের চাপ সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছে।

জানা গেছে, সড়ক আর নৌপথের বিড়ম্বনা এড়াতে মধ্যবিত্ত থেকে উচ্চবিত্তরা ঈদের এক মাস আগ থেকেই বিমানের টিকিট ক্রয় শুরু করায় ১ জুলাই থেকে ৫ জুলাই পর্যন্ত বেশির ভাগ এয়ারলাইন্সের টিকিট নেই। আবার ৮ জুলাই থেকে ১৩ জুলাই পর্যন্ত ফিরতি ফ্লাইটগুলোতে টিকিট নেই। কিছু টিকিট বিক্রি হলেও সেগুলোর দাম বেশি। যাত্রীরা বলেছেন, অন্যান্য সময়ের তুলনায় এই ১৫ দিনের টিকিটের দাম স্বাভাবিকের তুলনায় ৩-৪ গুণ বেশি। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, সৈয়দপুর, যশোর, রাজশাহী রুটের টিকিট নেই বললেই চলে। বেসরকারি এয়ারলাইন্স সংস্থার এক কর্মকর্তা বলেন, এক মাস আগেই ঈদের ৩ দিন আগে ও ৩ দিন পরের টিকিট শেষ হয়ে গেছে। কিছু কিছু এয়ারলাইন্সের টিকিট পাওয়া গেলেও সেগুলোর দাম আকাশচুম্বী। তিনি বলেন, এ বছর দেশীয় ট্যুরিজমের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ট্যুরিজমের চাপ বেড়ে যাওয়ায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। রাষ্ট্রীয় সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ছাড়াও রিজেন্ট এয়ারওয়েজ, নভো এয়ার, ইউএস বাংলা, এমিরেটস, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, কাতার, কুয়েত, এয়ার এরাবিয়া, এয়ার এশিয়া, ফ্লাই দুবাই, ইতিহাদের সংশ্লিষ্ট রুটের অগ্রিম টিকিট বিক্রি প্রায় শেষ। ঈদকে কেন্দ্র করে যাত্রী আকর্ষণ করতে বিভিন্ন এয়ারলাইন্স ছেড়েছে নিত্যনতুন আন্তর্জাতিক প্যাকেজ। উচ্চবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের কথা চিন্তা করে এসব প্যাকেজ তৈরি করা হয়েছে বলে জানান এয়ারলাইন্স ব্যবসায়ীরা। আন্তর্জাতিক ট্যুরিজমে ইতিমধ্যে সবচেয়ে বেশি টিকিট বিক্রি করেছে ঢাকা-ব্যাংকক, ঢাকা-সিঙ্গাপুর, ঢাকা-মিসর, ঢাকা-মালয়েশিয়া ও ঢাকা-ইন্ডিয়া রুটের এয়ারলাইন্সগুলো। আর অভ্যন্তরীণ রুটে আছে ঢাকা-কক্সবাজার ও ঢাকা-সিলেট রুটের এয়ারলাইন্সগুলো। বাংলাদেশ বিমানের সহকারী ম্যানেজার (জনসংযোগ) তাসমিন আক্তার বলেন, অতিরিক্ত চাহিদার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ঈদের চার দিন আগে থেকেই নিয়মিত ফ্লাইটের পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন রুটে আরও চার-পাঁচটি ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এদিকে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অভ্যন্তরীণ পাঁচটি রুটে অতিরিক্ত ফ্লাইট পরিচালনা করবে দেশের প্রিমিয়াম ও সর্ববৃহৎ বেসরকারি বিমান সংস্থা নভোএয়ার। রুটগুলোর মধ্যে রয়েছে সৈয়দপুর, যশোর, কক্সবাজার, রাজশাহী ও বরিশাল। নভোএয়ারের কর্মকর্তা নিলাদ্রী মাহারত্ন জানান, যাত্রীদের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে সৈয়দপুর ও যশোর রুটে ১ জুলাই থেকে ৫ জুলাই পর্যন্ত ও ৮ জুলাই থেকে ১১ জুলাই এবং কক্সবাজার রুটে ৭ জুলাই থেকে ১০ জুলাই নিয়মিত সিডিউল ফ্লাইটের পাশাপাশি প্রতিদিন অতিরিক্ত একটি করে ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। এ ছাড়াও ঈদের আগে নিয়মিত সিডিউল ফ্লাইটের পাশাপাশি রাজশাহীতে ২, ৩ ও ৫ জুলাই এবং বরিশালে ৪ জুলাই অতিরিক্ত ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের উপ-মহাব্যবস্থাপক (মার্কেটিং সাপোর্ট অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস) মো. কামরুল ইসলাম জানান, ঈদে ইউএস বাংলা ফ্লাইট সংখ্যা বাড়িয়েছে। যশোরে তিনটি, রাজশাহীতে তিনটি ও সৈয়দপুরগামী ফ্লাইট দুটি বাড়ানো হয়েছে। এর পরও যাত্রীদের চাপ কমছে না। এ পরিস্থিতিতে কর্তৃপক্ষ আরও ফ্লাইট সংখ্যা বাড়ানোর চিন্তাভাবনা করছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow