Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : সোমবার, ৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:৩০
অষ্টম কলাম
সিলেটে বুকিং বাতিল পর্যটকদের
শাহ্ দিদার আলম নবেল, সিলেট

ঈদের ছুটিকে কেন্দ্র করে সিলেটে পর্যটকদের ঢল নামার কথা ছিল। জুন মাসের শেষেই বুকিং হয়ে গিয়েছিল প্রায় সব হোটেলের রুম। পর্যটকদের বরণ করতে সব প্রস্তুতিও সেরে রেখেছিলেন হোটেল মালিকরা। কিন্তু গত শুক্রবার গুলশান ট্র্যাজেডির পর সিলেটবিমুখ হয়ে পড়ছেন পর্যটকরা। ঘটনার পর থেকে তারা বুকিং বাতিল করা শুরু করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলোর মতে, যে হারে প্রতিদিন বুকিং বাতিল হচ্ছে, তা অব্যাহত থাকলে ঈদের ছুটিতে সিলেট পর্যটকশূন্য থাকবে। এতে বড় ধরনের ব্যবসায়িক ক্ষতির সম্মুখীন হবেন হোটেল মালিকরা।

প্রসঙ্গত, পর্যটন জেলা হিসেবে সারা দেশে পরিচিত সিলেট। সিলেটের নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক নৈসর্গ উপভোগ করতে সারা বছর দেশি-বিদেশি পর্যটকরা ছুটে আসেন এখানে। সিলেটে এসে প্রকৃতিকন্যা জাফলং, জল-পাথরের অপরূপ বিছানাকান্দি, সফেদ ঝরনাধারা পাংথুমাই, জলারবন রাতারগুল, পান্না-সবুজ জলের লালাখাল, সীমান্তঘেঁষা সারি সারি পাহাড়, হাওর-বাঁওড়ের উত্তাল ঢেউ দেখে মুগ্ধ হয়ে ফেরেন পর্যটকরা। এই মুগ্ধতায় পর্যটকরা বারবার ফিরে আসেন সিলেটে। সংশ্লিষ্টরা জানান, এবার ঈদের আগে ও পরে সব মিলিয়ে সরকারি ছুটি ৯ দিন। দীর্ঘ এই ছুটিতে সিলেটে বেড়াতে আসার জন্য পর্যটকরা অগ্রিম হোটেল বুকিং দিয়ে রেখেছিলেন। চলতি জুলাই মাস শুরুর আগেই সিলেটের প্রায় ৩০০ হোটেলের সব রুমই বুকিং হয়ে যায়। অনেক পর্যটক সপরিবারেই ঈদের ছুটি কাটানোর জন্য সিলেটকে বেছে নিয়েছিলেন। পর্যটকদের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করতে সিলেটের হোটেলগুলোও নতুন ধাঁচে সাজানো হয়েছিল। সংস্কার ও উন্নয়ন করে হোটেলগুলো আকর্ষণীয় করে তুলেছিলেন মালিকরা। কিন্তু গত শুক্রবার রাতে গুলশান ট্র্যাজেডির পর সিলেটের হোটেল ব্যবসায় যেন বিনা মেঘে বজ পাতের মতো অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। পর্যটকরা তাদের বুকিং বাতিল করতে শুরু করেছেন। যারা পরিবার নিয়ে সিলেটে ঈদ করার জন্য ৩-৪ দিনের জন্য হোটেল বুকিং দিয়েছিলেন তাদের বেশিরভাগই তাদের বুকিং বাতিল করে দিয়েছেন। সিলেট হোটেল অ্যান্ড গেস্ট হাউস ওনার্স গ্রুপের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ জানান, ঈদের ছুটিতে সিলেটের প্রায় সব হোটেল বুকিং ছিল। কিন্তু গুলশান ট্র্যাজেডির পর বুকিং বাতিল শুরু হয়েছে। দুই দিনে প্রায় ২০ ভাগ বুকিং বাতিল হয়েছে। পরিবার নিয়ে যারা সিলেটে বেড়াতে আসার পরিকল্পনা করেছিলেন তাদের প্রায় সবাই হোটেল বুকিং বাতিল করেছেন। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে এবার ঈদে হোটেল ব্যবসায়ীরা মারাত্মক ব্যবসায়িক বিপর্যয়ের সম্মুখীন হবেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow