Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ১১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ জুলাই, ২০১৬ ০০:১৪
যুবলীগ নেতা খুনে গ্রেফতার ১
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের উপ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক রাজিব হাসান খান বাবু হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় রোমান নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাকে হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

সে রাজিবের সঙ্গে চলাফেরা করত। রোমান ৪২ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সহ-সভাপতি। রাজিব নিহতের ঘটনায় গতকাল সূত্রাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। নিহতের মা মার্জিয়া বেগম মামলার বাদী। মামলায় ১২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও বেশ কয়েকজনকে আসামি করা হয়।

নিহতের স্বজনরা বলছেন, পুরান ঢাকার ৪২ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি ফয়সাল আহমেদ ওরফে নাসিরকে এক নম্বর আসামি করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামিরা রাজিবের বন্ধু ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী। তারা বিভিন্ন সময়ে রাজিবের কাছে চাঁদা চেয়ে হুমকি দিত। এছাড়া রাজিব সব সময় খারাপ কাজের প্রতিবাদ করতেন।

এটা তারা মেনে নিতে পারেনি। এরই জেরে নাসির ও শাকিলের নেতৃত্বে মামলার আসামিরা রাজিবকে গুলি করে হত্যা করেছে। পুলিশের কোতোয়ালি জোনের এডিসি এস এম মুরাদ আলি বলেন, রাজিব হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় করা মামলার এজাহারভুক্ত দুই নম্বর আসামি রোমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। মামলার অন্য আসামিদের ধরতে অভিযান চলছে। জানা গেছে, চাঁদাবাজি, দখল বাণিজ্য, আধিপত্য বিস্তার, ভাগ-বাটোয়ারাসহ বিভিন্ন ঘটনায় রাজিবের সঙ্গে তার প্রতিপক্ষ গ্রুপের দ্বন্দ্ব ছিল। এছাড়া কয়েকটি হত্যাকাণ্ডে রাজিবের সঙ্গে অংশ নেওয়া দুজন বিদেশে পাড়ি জমিয়েছে। এনিয়েও তাদের সঙ্গে রাজিবের বিরোধ ছিল। এসব ঘটনার জেরে তাকে হত্যা করা হতে পারে। পুলিশের লালবাগ বিভাগের ডিসি মারুফ হোসেন সরদার বলেন, রাজিব হত্যাকাণ্ডের পেছনে রাজনৈতিক, পারিবারিক ও সম্পত্তির বিরোধ থাকতে পারে। এছাড়া তার হত্যার বিষয়ে যেসব অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। রাজিব হত্যাকাণ্ডসহ একাধিক মামলার আসামি হলেও তাকে হত্যার পেছনে কারা জড়িত তা খুঁজে বের করা হবে। আশা করছি অল্প সময়ে রাজিবের হত্যাকারীরা ধরা পড়বে।

গত শুক্রবার রাতে পুরান ঢাকার সূত্রাপুরের রোকনপুর তৃতীয় লেনের ৬ নম্বর বাড়ির সামনে যুবলীগ নেতা রাজিব হাসান খান বাবুকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow