Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : বুধবার, ১৩ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ জুলাই, ২০১৬ ০৩:০১
প্রধান বিচারপতির বৈঠক
সুপ্রিমকোর্টের নিরাপত্তা বাড়ানোর পদক্ষেপ
নিজস্ব প্রতিবেদক

একের পর এক জঙ্গি হামলার প্রেক্ষাপটে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিমকোর্টের নিরাপত্তা জোরদার করার উদ্যোগ নিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এস কে) সিনহা। এ জন্য গতকাল বিকালে সুপ্রিমকোর্টের সিনিয়র আইনজীবীদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধান বিচারপতি। এ বৈঠকেই দেশের বিদ্যমান অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষ নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। বৈঠকে নিরাপত্তা সুরক্ষার ক্ষেত্রে নেওয়া পদক্ষেপ বাস্তবায়নে আইনজীবীদের সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধান বিচারপতি। আইনজীবীরাও নিরাপত্তার প্রশ্নে সুপ্রিমকোর্টের নেওয়া সব পদক্ষেপ বাস্তবায়নে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

গতকাল সুপ্রিমকোর্টের জাজেস লাউঞ্জে সিনিয়র আইনজীবীদের সঙ্গে প্রধান বিচারপতির এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে সিনিয়র আইনজীবী ড. কামাল হোসেন, ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার, সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন ও সম্পাদক ব্যারিস্টার এম মাহবুব উদ্দিন খোকন, সাবেক আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু এমপি, সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক অ্যাডভোকেট এম মাহবুব আলী এমপি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া সুপ্রিমকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল সৈয়দ আমিনুল ইসলাম, হাইকোর্টের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (প্রশাসন ও বিচার) মো. সাব্বির ফয়েজসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সম্প্রতি ঢাকার গুলশান ও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলায় হতাহতের ঘটনায় সুপ্রিমকোর্টের বিচারক, আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থী জনগণের নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে বিচারক, সুপ্রিমকোর্ট প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে কিছু ব্যবস্থা নেন প্রধান বিচারপতি। এজন্য সোমবার সুপ্রিমকোর্টের বিভিন্ন ভবন চারপাশ থেকে পরিদর্শন করেন তিনি। এ ছাড়া সরকারের কাছে আরও পুলিশ ফোর্স চাওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। এরপর সুপ্রিমকোর্ট প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তার জন্য নেওয়া পদক্ষেপ গতকাল আইনজীবীদের সামনে তুলে ধরা হয়। এর মধ্যে আদালত ভবনের মূল ফটক ছাড়া বিকল্প ফটক (শুধু বিচারপতিদের ব্যবহারের জন্য) ব্যবহার না করা, সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণে প্রবেশরত সব গাড়ি স্ক্যানিং করা, সুপ্রিমকোর্ট প্রশাসন ও আইনজীবী সমিতির স্টিকারসংবলিত গাড়ি ছাড়া অন্য কোনো বাড়ি অবস্থান না করা, রিকশার প্রবেশ নিষিদ্ধ, আইনজীবীদেরও ব্যাজ ও আইনজীবী সহকারীদের পরিচয়পত্র সার্বক্ষণিক গলায় ঝোলানোর বিষয়টি তুলে ধরা হয়। আইনজীবীরা এসব পদক্ষেপ মেনে চলার বিষয়ে প্রধান বিচারপতিকে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

এর আগে সুপ্রিমকোর্টের কয়েকটি হাইকোর্ট বেঞ্চে আইনের বইয়ের মধ্যে বোমা ও বোমাসদৃশ বস্ত্র পাওয়া যায়। তখন দেশের সর্বোচ্চ আদালতে বিচারক, আইনজীবীসহ সংশ্লিষ্টদের মধ্যে ভীতির সৃষ্টি হয়। ওই ঘটনার পর সুপ্রিমকোর্টে বাড়তি নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow