Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ১৭ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৬ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৩৮
নিখোঁজ নজিবুল্লাহর বাড়ি শিবগঞ্জে
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

গুলশানে হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে হামলার ঘটনার পর গণমাধ্যমে নিখোঁজ যে ১০ জনের ছবি প্রকাশ করা হয় তাদের মধ্যে একজন নজিবুল্লাহ আনসারীর বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার চককীর্তি ইউনিয়নের চকনাধরা গ্রামে। নিখোঁজ নজিবুল্লাহ আনসারী পেশায় মেরিন ইঞ্জিনিয়ার।

তার পিতা রফিকুল্লাহ আনসারী চট্টগ্রামে নৌবাহিনীতে চাকরি করতেন এবং গত ডিসেম্বর মাসে অবসর গ্রহণের পর তিনি সেখানেই বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। ছেলের নিখোঁজের ছবি দেখার পর থেকেই তার মা জিয়াসমিন বেগম অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গেছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পিতার চাকরির সুবাদে ১৯৮৭ সালে  জন্ম নেওয়া নজিবুল্লাহ আনসারীর শিক্ষাজীবন শুরু হয় চট্টগ্রামের হালিশহরের ক্যান্টনমেন্ট প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। পরে সে রাজশাহী ক্যাডেট কলেজে সপ্তম শ্রেণিতে ভর্তি হয়ে সেখান থেকে এইচএসসি পাস করে ২০০৮ সালে একটি কোম্পানির সহায়তায় মালয়েশিয়ায় মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ভর্তি হয়ে ৩ বছর পর প্রশিক্ষণের জন্য আমেরিকা যায় এবং এক বছর পর ফিরে আবারও ওই কোম্পানির সহযোগিতায় ২০১২ সালে মেরিন ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে চাকরিতে যোগদান করে। এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে তার এক নিকটাত্মীয় জানান, নজিবুল্লাহ আনসারী খুব কম বাড়িতে আসত এবং খুব কম কথা বলত। ২০০৮ সালের পর সে আর গ্রামের বাড়ি আসেনি। তবে তার পিতা রফিকুল্লাহ আনসারী প্রায় দুই বছর আগে একবার এসেছিলেন। এলাকার লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নজিবুল্লাহর পূর্বপুরুষরা মুসলিম লীগ সমর্থক ছিল এবং তারা দীর্ঘদিন ধরে জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এমনকি তার নানা-নানীর পরিবারও জামায়াতের সঙ্গে জড়িত। তবে চককীর্তি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সারোয়ার-এ আলমের দাবি, এদের পরিবার ও এখানে বসবাসরত নিকটাত্মীয়রা অত্যন্ত ভদ্র এবং এরা কোনো দলের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নয়। এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) চৌধুরী জোবায়ের আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি নিয়ে ওই পরিবার সম্পর্কে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। তবে তার পরিবারের বা নিকটাত্মীয়দের বিরুদ্ধে থানায় কোনো মামলা নেই।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow