Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৯ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৮ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৩০
বেসিক ব্যাংক কেলেঙ্কারি
নাহার গার্ডেনের এমডিসহ ৭জন গ্রেফতার
নিজস্ব প্রতিবেদক

বেসিক ব্যাংক ঋণ কেলেঙ্কারি মামলার অন্যতম আসামি মেসার্স নাহার গার্ডেন (প্রাইভেট) লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. শফিউল ইসলামসহ সাতজনকে গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন, গতকাল রাজধানী ঢাকাসহ জামালপুর, কুষ্টিয়া, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া ও হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে পৃথক অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন দুর্নীতি মামলায় আসামিদের গ্রেফতার করা হয়েছে। দুদক পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে একটি দল রাজধানীর শাহবাগের পরিবাগ থেকে মো. শফিউল ইসলামকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার অন্য ছয় আসামি হলেন জামালপুরের সাবেক উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) সৈয়দ মুনিরুল ইসলাম ও কুষ্টিয়ার স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের (এলজিইডি) হিসাবরক্ষক শেখ সাফায়েত হোসেন, সিরাজগঞ্জের এল এ শাখার কানুনগো মো. আমিনুল ইসলাম, বগুড়ার পূবালী ব্যাংকের অফিসার ক্যাশ মো. শামিম সরকার ও হবিগঞ্জের মো. সাজন মিয়া। দুদক সূত্র জানিয়েছে, বেসিক ব্যাংক লিমিটেড শান্তিনগর শাখা থেকে মেসার্স নাহার গার্ডেন (প্রাইভেট) লিমিটেডের অনুকূলে ৩০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেন মো. শফিউল ইসলাম। ব্যাংক কর্মকর্তাদের যোগসাজশে বন্ধকি সম্পত্তিতে প্রতারণা ও জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে অতিমূল্যায়ন দেখিয়ে তিনি এ টাকা আত্মসাৎ করেন; যা পরে সুদাসলে ৩৮ কোটি ৭২ লাখ ৭৪ হাজার ৯৮৪ টাকা হয়। এ অভিযোগে ২০১৪ সালের ১৮ জুলাই মামলা দায়ের করে দুদক। এ ছাড়া জামালপুরের সাবেক উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) সৈয়দ মুনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে কাজ না করে প্রকল্পের ৩৯ দশমিক ৭৫৩ মেট্রিক টন গম বা ১২ লাখ ৮৮ হাজার ৭২৪ টাকা আত্মসাতের মামলা রয়েছে। তার বিরুদ্ধে আরও পাঁচটি দুর্নীতির মামলা রয়েছে। অন্যদিকে কুষ্টিয়া এলজিইডির হিসাবরক্ষক শেখ সাফায়েত হোসনের বিরুদ্ধে বিল-ভাউচারের মাধ্যমে ১৭ লাখ ৭২ হাজার ৭০২ টাকা আত্মসাতের মামলা রয়েছে। তাকে কুষ্টিয়ার কোর্টপাড়া থেকে গ্রেফতার করা হয়। বাকিদের বিরুদ্ধে প্রতারণা ও জালিয়াতির মামলা রয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow