Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ২২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৩০
দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে ৩ নম্বর ইউনিট নির্মাণ কাজ
বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র
দিনাজপুর প্রতিনিধি

বিদ্যুৎ খাতে সাফল্যের আরেক ধাপ অগ্রগতি বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ২৭৫ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন নির্মাণাধীন ৩ নম্বর ইউনিট। ২০১৮ সালের জুলাই মাসের মধ্যে ইউনিটটির উৎপাদনে যাওয়ার কথা রয়েছে। এটি উৎপাদনে গেলে বড়পুকুরিয়া ২৫০ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে উৎপাদনক্ষমতা ৫২৫ মেগাওয়াটে গিয়ে দাঁড়াবে। দেশে ক্রমবর্ধমান বিদ্যুতের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে ২৭৫ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন ৩ নম্বর ইউনিট স্থাপনের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে। এদিকে নির্মাণকাজ শুরু হওয়ায় প্রত্যক্ষভাবে এলাকার প্রায় এক হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থান এবং পরোক্ষভাবে আরও পাঁচ হাজার লোক উপকৃত হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। তৃতীয় ইউনিটটি উৎপাদনে গেলে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের বিদ্যুতের চাহিদা পূরণসহ লো-ভোল্টেজ জনিত সমস্যা কমে আসবে। এ ছাড়া এই বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডেও যোগ হবে। ৩ নম্বর ইউনিটটি চালু রাখতে প্রতিদিন গড়ে প্রায় দুই হাজার টন হিসেবে বছরে প্রায় সাত লাখ টন কয়লার প্রয়োজন হবে। এতে বড়পুকুরিয়া খনির কয়লার সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করা যাবে।

জানা গেছে, ২৭৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার ৩ নম্বর ইউনিটটি বাস্তবায়ন করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জয়েন্ট ভেঞ্চার অব হারবিন ইলেকট্রিক ইন্টারন্যাশনাল ও সিসিসি ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড। প্রকল্প এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের মূল ভবনের (বয়লার ও মেশিন হাউস) সংলগ্ন উত্তর পাশে ৩ নম্বর ইউনিটের বয়লার, টারবাইন, চিমনি নির্মাণের পাইলিংসহ সিভিল ওয়ার্ক প্রায় শেষ পর্যায়ে। মেইন ভবন ও বয়লার হাউসের স্টিল স্ট্রাকচার ও ২২০ মিটার চিমনি নির্মাণসহ অন্যান্য কাজ পুরোদমে চলছে। ২০১৮ সালের জুন মাসের মধ্যে ইউনিটটি উৎপাদনে যাওয়ার কথা থাকলেও যে গতিতে কাজ চলছে তাতে নির্ধারিত সময়ের অন্তত চার মাস আগেই উৎপাদনে যাবে বলে মনে করেন বাস্তবায়ন প্রকল্পের পরিচালক (পিডি) প্রকৌশলী চৌধুরী নুরুজ্জামান।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow