Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ২২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৩৮
জঙ্গি অর্থায়নে সতর্কতা
এলসি খুললেই তথ্য দিতে হবে বাংলাদেশ ব্যাংকে
নিজস্ব প্রতিবেদক

এখন থেকে ঋণপত্র (এলসি) খোলার সময় আমদানিকারকের নাম, মূসক নম্বর সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করতে হবে। সরকারি প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে খোলা এলসির ক্ষেত্রে ক্রয়কারী বা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের বিআইএন অথবা ভ্যাট নম্বর ব্যবহার করতে হবে। জঙ্গি অর্থায়ন ঠেকাতে এ নির্দেশ দিয়ে সব বাণিজ্যিক ব্যাংককে চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একই সঙ্গে ব্যাংকে রক্ষিত অর্থের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোকে আলাদা তহবিল গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গতকাল বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে পাঠানো এক চিঠিতে বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, দেশের আমদানি বাণিজ্যের সঠিক ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে আমদানিকারকদের মূসকের আওতায় নিবন্ধন গ্রহণ বাধ্যতামূলক। মূসক নিবন্ধন নম্বর উল্লেখ না করে বাণিজ্যিক ব্যাংক থেকে এলসি খোলার ফলে পণ্য খালাসে জটিলতা দেখা দেয়। এসব জটিলতা এড়াতে চার দফা শর্ত দিয়ে ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হলো। এসব শর্তের মধ্যে রয়েছে : আমদানিকারকের সঙ্গে পণ্য ক্রয়কারী প্রতিষ্ঠানের চুক্তিপত্রের সত্যায়িত কপি দাখিল। এলসি খোলার সঙ্গে সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের ইমেইলের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংককে জানানো। এ ছাড়া আরেক চিঠিতে ব্যাংকের ভল্টে রক্ষিত অর্থ, ক্যাশ অন কাউন্টার, ক্যাশ ইন ট্রানজিট ও ক্যাশ ইন এটিএম বুথের ওপর ঝুঁকি মোকাবিলায় সব রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংককে পৃথক তহবিল গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অন্যান্য বাণিজ্যিক ব্যাংকের ক্ষেত্রে পূর্ণ বীমা নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow