Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:০৮
আওয়ামী লীগের চুক্তি জনস্বার্থবিরোধী
———— খালেদা জিয়া
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, আওয়ামী লীগ এ পর্যন্ত যত চুক্তি করেছে, করে যাচ্ছে তার সবই দেশ ও জনস্বার্থবিরোধী। ইতিপূর্বে আওয়ামী  লীগ ফারাক্কা ব্যারাজ করেছে, এটি বন্ধুত্ব নয়।

বর্ষার সময় তারা সব গেট খুলে দেয়। আর শুকনো মৌসুমে গেট বন্ধ রাখায় প্রয়োজনের সময় আমরা পানি পাই না। তিনি বলেন, এরপর একের পর এক চুক্তি এই সরকার করে গেছে যার একটিও জনগণের জন্য নয়। এখন রামপাল করছে, এটিও দেশের পক্ষে বা জনগণের স্বার্থের জন্য নয়। সমস্ত কিছু দেশের স্বার্থবিরোধী। আমরা সরকারের গেলে আলোচনার মাধ্যমে এসব সমস্যার সমাধান করব।

গতকাল বিকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন (আইইবি) মিলনায়তনে বিএনপির ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন। এর আগে সকালে দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে দলের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সারা দেশে মহানগর জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে নানা কর্মসূচি পালিত হয়। দলের পক্ষ থেকে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে বিশেষ ক্রোড়পত্র ও পোস্টার প্রকাশ করা হয়।

সভায় সরকারের জঙ্গি দমন তত্পরতাকে ‘রহস্যময়’ আখ্যা দিয়ে বেগম জিয়া বলেন, এ দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটেছে আওয়ামী লীগের আমলে। উদীচীর অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি হামলার কথা আপনাদের মনে আছে। এরপর আমরা সরকারে এসে এই পুলিশ আর র‌্যাব দিয়েই জঙ্গিদের জীবিত ধরে আদালতের মাধ্যমে বিচার করেছি। আর এখন শোনা যায় এই অভিযানে এতজন মারা পড়েছে, আর ওই অভিযানে এতজন মারা পড়েছে। আসলে কারা মারা পড়ছে, তা বোঝার কোনো উপায় নেই। কিছুদিন আগে গোপালগঞ্জে এক জঙ্গি ধরার পর আদালতের আদেশে রিমান্ডে নিয়ে হ্যান্ডকাফ ও বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট পরা অবস্থায় হত্যা করা হয়েছে। অথচ সে জীবিত অবস্থায় জনগণের হাতে ধরা পড়েছিল।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, আ স ম হান্নান শাহ, মির্জা আব্বাস ও আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বিএনপি প্রধান বলেন, রামপাল কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে সুন্দরবন শেষ হয়ে যাবে। এ প্রকল্পটি সেখানে না করার জন্য বারবার বলা হচ্ছে। কিন্তু তারা শুনছেন না। রামপালে বিদুেকন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদে কয়েকদিন আগে যে সংবাদ সম্মেলন করেছিলাম তার অনেক সমালোচনা করেছে সরকার। তবে কোনো পয়েন্টের সদুত্তর তারা দিতে পারেনি। সুন্দরবনের পাশে কয়লা বিদ্যুেকন্দ্র হওয়া উচিত নয়। সুন্দরবন শেষ হয়ে যাবে। পৃথিবীর অনেক কম দেশের এমন বন রয়েছে।

খালেদা জিয়া বলেন, আমি কখনো বলিনি বিদুেকন্দ্র বন্ধ রাখতে হবে। যে জায়গায় ক্ষতি হয় সেখানে না করার কথা বলেছি।

জিয়ার কবরে খালেদার শ্রদ্ধা : বিএনপির ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন খালেদা জিয়া। সকালে নেতা-কর্মীদের নিয়ে শেরেবাংলা নগরে দলের প্রতিষ্ঠাতার কবরে যান বিএনপি  চেয়ারপারসন। শ্রদ্ধা জানানোর পর বিশেষ মোনাজাতেও অংশ নেন তিনি।

এ সময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, দেশ গণতন্ত্রবিহীন অবস্থায় চলছে। স্বৈরাচারী শাসকরা জনগণের অধিকার হরণ করেছে। তারা বিরোধী রাজনৈতিক দল বিশেষ করে বিএনপির ওপর নির্যাতনের স্টিম রোলার চালিয়ে এই দলকে নির্মূল করে দিতে চায়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, আ স ম হান্নান শাহ, মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস  চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, মো. শাহজাহান, রুহুল আলম চৌধুরী, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী, আমান উল্লাহ আমান, জয়নুল আবদিন ফারুক, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবীর খোকন, ফজলুল হক মিলন, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া প্রমুখ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow