Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০৫
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জঙ্গি প্রতিরোধের ডাক
সারা দেশে সভা-সমাবেশ, মানববন্ধন
নিজস্ব প্রতিবেদক
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জঙ্গি প্রতিরোধের ডাক
ঢাকা মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের আয়োজনে গতকাল রাজধানীতে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবিরোধী সভা শেষে র্যা লি বের হয় —বাংলাদেশ প্রতিদিন

সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গতকাল জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদবিরোধী মানববন্ধন, সভা-সমাবেশ ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আয়োজিত এসব কর্মসূচি থেকে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ ও প্রতিহতের ঘোষণা দেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্টরা। ছাত্র-ছাত্রীরা ব্যানার, ফেস্টুন নিয়ে অংশ নেয়। হাতে হাত ধরে মানববন্ধন করে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে শপথ নেয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে জঙ্গিবিরোধী আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সভাপতিত্বে শিক্ষা সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহমদ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল প্রমুখ এতে বক্তব্য দেন।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সামাজিক ও প্রতিরোধমূলক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। বেহেশতের কথা বলে জঙ্গিরা শিক্ষার্থীদের বিপদগামী করছে। ইসলাম শান্তির ধর্ম। এ ধর্মে মানুষ হত্যার কোনো বিধান নেই। অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, সব শিক্ষক-শিক্ষার্থীকে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সচেতন থাকতে হবে। কারও বিরুদ্ধে যদি জঙ্গিবাদের সঙ্গে সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া যায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে রাজধানীর নবকুমার ইনস্টিটিউটে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবিরোধী সভায় খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তরুণ প্রজন্মকে জানাতে হবে যাতে তারা দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে বেড়ে উঠতে পারে। অনুষ্ঠানে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদসহ অন্যরা বক্তব্য দেন। সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবিরোধী এক আলোচনা সভায়ও শিক্ষামন্ত্রী বক্তব্য দেন। অতিরিক্ত সচিব ও কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি এ এস মাহমুদ, নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ফাদার বেনজামিন ডি কস্তা প্রমুখ এতে বক্তব্য দেন। ইডেন মহিলা কলেজে জঙ্গিবিরোধী সমাবেশে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদ, উপ-অধ্যক্ষ ড. শামসুন নাহারসহ অন্যরা বক্তব্য দেন। উপাচার্য বলেন, কেউ সন্ত্রাস-জঙ্গি হয়ে জন্মায় না, পরিবেশ তা সৃষ্টি করে। সারা দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, স্কুল-কলেজেও জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবিরোধী সভায় উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন সাংবাদিক আবেদ খান। এর আগে আরেক অনুষ্ঠানে জঙ্গিবাদবিরোধী বক্তব্য দেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ, বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টের চেয়ারম্যান আজিমউদ্দিন আহমেদ, ট্রাস্টি সদস্য এম এ কাশেম ও বেনজির আহমেদ প্রমুখ। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা কোনো কিছুর বিনিময়ে সন্ত্রাসবাদ-জঙ্গিবাদের সঙ্গে আপস করব না। র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, আগে প্রান্তিক পরিবারের সন্তানরা জঙ্গিবাদে জড়িত থাকত এখন উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানরা জড়াচ্ছে। কেন উচ্চবিত্তের সন্তানরা এসবে জড়াচ্ছে তা গবেষণার বিষয়।

ইস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবিরোধী আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবদুর রব, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবদুল হান্নান চৌধুরী, রেজিস্ট্রার আবুল বাশার খান প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় প্রতিটি পরিবারকে সচেতন হতে হবে। নর্দার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গিবিরোধী আলোচনা সভায় অধ্যাপক ড. খন্দকার সাফায়াত হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল করীম। কোষাধ্যক্ষ মো. আনোয়ার হোসাইন, রেজিস্ট্রার লে. কর্নেল (অব.) একতেদার আহমেদ, বনানী সোসাইটির প্রেসিডেন্ট শওকত আলী ভূইয়া, সেক্রেটারি জেনারেল শাহ আবুল কাশেম প্রমুখ এতে উপস্থিত ছিলেন। রাজধানীর লালমাটিয়া ও রেসিডেনসিয়াল কলেজে জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবিরোধী আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। কলেজ দুটিতে সভাপতিত্ব করেন যথাক্রমে অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম ও অধ্যক্ষ ব্রি. জে. আবদুল হান্নান। বক্তব্য দেন মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা (মাউশি) অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. এস এম ওয়াহিদুজ্জামান প্রমুখ। মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে সন্ত্রাসবিরোধী সভায় বক্তব্য দেন কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি, যুবলীগ নেতা মাইনুল হোসেন নিখিল, অধ্যক্ষ ফরহাদ হোসেন প্রমুখ। এ ছাড়া বেসরকারি ইন্ডিপেনডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটিসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গিবিরোধী নানা কর্মসূচি পালন করা হয়।

আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর— রাজশাহী : সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন বলেন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সায়েন উদ্দিন আহমেদ, ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমানসহ অন্যরা এতে বক্তব্য দেন। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) জঙ্গিবিরোধী র‌্যালি, আলোচনা সভা, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, নাটক, নৃত্যানুষ্ঠানসহ নানা কর্মসূচি পালিত হয়েছে। উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর রশিদ আসকারি ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমানের নেতৃত্বে জঙ্গিবিরোধী র‌্যালির আয়োজন করা হয়। পরে ‘জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস প্রতিরোধ’ শীর্ষক এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। টাঙ্গাইলে মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ কর্মকাণ্ড প্রতিরোধ, প্রতিকার এবং সচেতনতা বৃদ্ধি শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আলাউদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন অধ্যাপক ড. মো. সিরাজুল ইসলামসহ অন্যরা। জেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উদ্যোগেও জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবিরোধী আলোচনা সভা হয়েছে।

up-arrow