Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৫৬
চামড়া সিন্ডিকেট নিয়ে সতর্ক সরকার
নিজস্ব প্রতিবেদক

কোরবানির পশুর চামড়া যাতে পার্শ্ববর্তী দেশে পাচার হয়ে যেতে না পারে সে বিষয়ে সতর্কতামূলক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার। কাঁচা চামড়ার পাচার ঠেকাতে এরই মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সীমান্ত রক্ষায় নিয়োজিত বিজিবিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সিন্ডিকেট করে ঘোষিত মূল্যের চেয়ে কাঁচা চামড়ার দাম যাতে কমানো না হয় সে বিষয়টিও মনিটরিং করবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এদিকে কাঁচা চামড়া সংরক্ষণে এবার লবণ সংকটের আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা। তারা এরই মধ্যে লবণ               নিয়ে তাদের উদ্বেগের বিষয়টি অবহিত করেছেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, চামড়া পাচার বন্ধ করতে বিজিবিসহ সংশ্লিষ্ট আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যাতে সতর্ক থাকে সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া চামড়া সংরক্ষণে যাতে কোনো সমস্যা না হয় সেজন্য লবণ আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, চামড়া সংরক্ষণের জন্য লবণের কোনো সংকট হবে না। এ ছাড়া লবণের দাম কমানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আগে দেড় লাখ মেট্রিক টন লবণ আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। গত সপ্তাহে আরও এক লাখ মেট্রিক টন লবণ আমদানির নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে আড়াই লাখ মেট্রিক টন লবণ আমদানি হয়েছে। ফলে লবণের সংকট হবে না। লবণের মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে সচিব বলেন, ‘আমরা চামড়া ব্যবসায়ীদের সতর্ক করে দিয়েছি। অন্যদিকে লবণ ব্যবসায়ীদের বলেছি, সিন্ডিকেট করে দাম বাড়ানো যাবে না, আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সংগতি রেখেই দাম রাখতে হবে। নইলে লবণ আমদানি উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। আর চামড়া ব্যবসায়ীদের বলেছি, ন্যায্য মূল্য না দিলে চামড়া পাচার হয়ে যেতে পারে। সে কারণে যৌক্তিক দামে কোরবানির পশুর চামড়া কিনতে হবে।’ গত বছর প্রতি বর্গফুট কোরবানির পশুর চামড়া কেনা হয় ৫০ থেকে ৫৫ টাকা দরে। এবার এর চেয়ে প্রায় ৪০ শতাংশ দাম কমিয়ে চামড়ার মূল্য নির্ধারণের প্রস্তাব দেন ব্যবসায়ীরা। বিষয়টি নিয়ে ৫ সেপ্টেম্বর চামড়া ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। ওই বৈঠকে দাম কমানোর পক্ষে লবণ সংকটসহ নানা অজুহাত তুলে ধরেন ব্যবসায়ীরা। তবে কোরবানির চামড়ার দাম কমানোর বিষয়ে ব্যবসায়ীদের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন বাণিজ্যমন্ত্রী। মন্ত্রী কোরবানির পশুর চামড়ার নতুন দর প্রস্তাব করে বাণিজ্য সচিবের অনুমোদন নিয়ে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তা ঘোষণা করার জন্য নির্দেশ দেন ব্যবসায়ীদের। সেই সময়সীমা শেষ হয় বুধবার। শেষে আরেক দফা সময় নিয়ে শুক্রবার কোরবানির পশুর চামড়ার দাম ঘোষণা করেন ব্যবসায়ীরা। ট্যানারি ব্যবসায়ীরা এবার ঢাকায় প্রতি বর্গফুট লবণযুক্ত গরুর চামড়া কিনবেন ৫০ টাকায়; ঢাকার বাইরে এর দাম হবে ৪০ টাকা। এ ছাড়া সারা দেশে খাসির লবণযুক্ত চামড়া ২০ ও বকরির চামড়া ১৫ টাকায় সংগ্রহ করা হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow