Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪৭
মগবাজার ফ্লাইওভার
খুলল ইস্কাটন মৌচাক অংশ
নিজস্ব প্রতিবেদক
খুলল ইস্কাটন মৌচাক অংশ
ইস্কাটন-মৌচাকের এই অংশ গতকাল খুলে দেওয়া হয় —রোহেত রাজীব

মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের ইস্কাটন থেকে মৌচাক পর্যন্ত দ্বিতীয় অংশটি যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। গতকাল সকালে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন এই অংশের উদ্বোধনের পর বহুল প্রতীক্ষিত ফ্লাইওভারটির দ্বিতীয় অংশে যানবাহন চলাচল শুরু করে। মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন গতকাল ইস্কাটন থেকে মৌচাক পর্যন্ত ফ্লাইওভারের এক কিলোমিটার অংশের উদ্বোধন করার সময় স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবদুল মালেক, প্রধান প্রকৌশলী শ্যামা প্রসাদ অধিকারী উপস্থিত ছিলেন। ফ্লাইওভারের উদ্বোধন করে মন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অলরেডি এই ফ্লাইওভার উদ্বোধন করে দিয়েছেন। আমরা এর সাইডগুলো উদ্বোধন করছি। আমি যে অংশটার ?উদ্বোধন করলাম সেটার দৈর্ঘ্য এক কিলোমিটার। অন?্য অংশগুলো আগামী বছর জুন-জুলাইয়ের মধ্যে উদ্বোধন করতে সক্ষম হব ইনশাল্লাহ। তিনি বলেন, আশা করি ফ্লাইওভারের কাজ শেষ হয়ে গেলে এটি যানজট নিরসনে ভূমিকা রাখবে। এর আগে গত মার্চ মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের রমনা থেকে তেজগাঁও সাতরাস্তা পর্যন্ত দুই কিলোমিটার অংশ উদ্বোধন করেন। প্রসঙ্গত, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের তত্ত্বাবধানে ২০১৩ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি এই ফ্লাইওভারের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। দুই বছরের মধ্যে অর্থাৎ ২০১৫ সালের মধ্যে শেষ করার কথা থাকলেও তিন দফায় প্রকল্পের মেয়াদ বাড়িয়ে ২০১৭ সালের জুন মাসের মধ্যে শেষ করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। মেয়াদ বাড়ার পাশাপাশি এই প্রকল্পের ব্যয়ও বেড়েছে। প্রথমে প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছিল ৭৭২ কোটি ৭০ লাখ টাকা। পরবর্তীতে ব্যয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ২১৯ কোটি টাকা। প্রায় আট কিলোমিটার দীর্ঘ চার লেনের এ ফ্লাইওভারে ওঠানামার জন্য তেজগাঁওয়ের সাতরাস্তা, সোনারগাঁও হোটেল, মগবাজার, রমনা (হলি ফ্যামিলি হাসপাতাল সংলগ্ন রাস্তা), বাংলামোটর, মালিবাগ, রাজারবাগ পুলিশ লাইনস ও শান্তিনগর মোড়ে লুপ বা র‌্যাম্প রাখা হয়েছে।

 

এই পাতার আরো খবর
up-arrow