Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৫২
হেলিকপ্টার বিধ্বস্তে নিহত শাহ আলমের লাশ হস্তান্তর
কক্সবাজার প্রতিনিধি

কক্সবাজারের উখিয়ার রেজু নদী-সংলগ্ন সাগর মোহনায় শুক্রবার হেলিকপ্টার বিধ্বস্তে নিহত শাহ আলমের মৃতদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে। অন্যদিকে অল্পের জন্য রক্ষা পাওয়া বিশ্বসেরা ক্রিকেট অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান কক্সবাজার ছেড়েছেন।

গতকাল বিকাল ৩টা ২০ মিনিটে তিনি নভো এয়ারের একটি বিমানে কক্সবাজার থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন। এর আগে সকালে নিহতের বড় বোনের স্বামী মিজানুর রহমান মৃতদেহটি গ্রহণ করেন।

কক্সবাজার সদর থানার এসআই মানস বড়ুয়া জানিয়েছেন, সকালে মৃতদেহটি নিয়ে স্বজনরা সাতক্ষীরার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। নিহত শাহ আলম (৩২) সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার রাজারপুর ইউপির তেঁতুলিয়া গ্রামের শেখ মো. শামসুর রহমানের ছেলে। তিনি ঢাকার ঈগল-বি নামের বিজ্ঞাপনী সংস্থার কর্মকর্তা ছিলেন।

শুক্রবার সকালে উখিয়ার রেজু নদী-সংলগ্ন সাগর উপকূলে বেসরকারি বিমান সংস্থা মেঘনা এভিয়েশনের মালিকানাধীন হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়। বিধ্বস্ত হওয়ার আগে ওই হেলিকপ্টারের যাত্রী ছিলেন সাকিব আল হাসান। তাকে ইনানীর রয়েল টিউলিপ নামের আবাসিক হোটেলে নামিয়ে দিয়ে চারজন যাত্রী নিয়ে ফেরার সময় হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়। এতে শাহ আলম নিহত হন। পাইলট ও অপর তিন যাত্রী প্রাণে রক্ষা পান। ওশান প্যারাডাইসের কর্মকর্তা হায়াত খান জানান, ঘটনার পর শুক্রবার রাতেই সাকিব আল হাসান ইনানীর রয়েল টিউলিপ ত্যাগ করে কক্সবাজারের কলাতলীর আবাসিক হোটেল ওশান প্যারাডাইসে অবস্থান করেন। ওখানে রাত যাপন শেষে গতকাল বিকালে তিনি ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন।

কক্সবাজার বিমানবন্দরের ম্যানেজার সাধন কুমার মোহন্ত জানান, বেলা ৩টার দিকে সাকিব আল হাসান কক্সবাজার বিমানবন্দরে এসে ভিআইপি কক্ষে অবস্থান নেন। এরপর ৩টা ২০ মিনিটে নভো এয়ারের একটি বিমানে করে ঢাকার উদ্দেশে রওন হন তিনি। বিধ্বস্ত হেলিকপ্টারটির পরিচালনাকারী সংস্থা মেঘনা গ্রুপের মার্কেটিং ম্যানেজার খোরশেদ আলম জানিয়েছেন, বিধ্বস্ত হেলিকপ্টারটি জোয়ারের পানি থেকে মুক্ত রাখতে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ওপরে নিয়ে আসা হয়েছে। ইতিমধ্যে ঢাকা থেকে সিভিল এভিয়েশনের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow