Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:১৭
টাম্পাকোর ধ্বংসস্তূপে ফের আগুন
মালিককে গ্রেফতার ও ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন
গাজীপুর প্রতিনিধি

টঙ্গীর বিসিক শিল্পনগরীর টাম্পাকো ফয়েলস কারখানায় বিস্ফোরণ ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার ১১দিন পর গতকাল আবারও ভবনের ধ্বংসস্তূপে আগুন জলে ওঠে। নিখোঁজদের সন্ধানে সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের যৌথ ‘ফায়ার ফাইটিং অ্যান্ড রেসকিউ অপারেশন’ চলার সময় এ ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তত্ক্ষণাৎ আগুন নেভাতে সক্ষম হন। এদিকে, কারখানার মালিককে গ্রেফতার, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও হতাহত শ্রমিকদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণের দাবিতে গতকাল গাজীপুর শহরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন জেলা শাখা ও বাংলাদেশ কৃষি ফার্ম ফেডারেশন। সাবেক সংসদ সদস্য মকবুল হোসেনের মালিকানাধীন কারখানায় ১০ সেপ্টেম্বর ভোরে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে কারখানার বিশাল ভবনের অধিকাংশই ধসে পড়ে বিশাল ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়। কারখানায় আগুনে দগ্ধ হয়ে এবং ভেঙে পড়া কাঠামোর নিচে চাপা পড়ে এ পর্যন্ত ৩৫ জন মারা গেছেন এবং নিখোঁজ রয়েছেন ১১ জন। নিখোঁজদের সন্ধানে ১২ সেপ্টেম্বর উদ্ধার অভিযান শুরু করেন সেনাবাহিনীর ১৪ স্বতন্ত্র ইঞ্জিনিয়ারিং ব্রিগেডের সদস্যরা। গতকালও সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা যৌথভাবে ‘ফায়ার ফাইটিং অ্যান্ড রেসকিউ অপারেশন’ চালিয়েছেন। দুপুরে ধসে পড়া ভবনের একাংশে রড কেটে উদ্ধারকাজ চলার সময় আগুনের স্ফুলিঙ্গ পাশের ড্রামের কেমিক্যালের সংস্পর্শে এলে আগুন জলে ওঠে। এতে আগুন কিছু অংশ জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। তবে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তত্ক্ষণাৎ আগুন নিভিয়ে ফেলেন। গতকাল ‘ফায়ার ফাইটিং অ্যান্ড রেসকিউ অপারেশন’ চালালেও ধ্বংসস্তূপে জীবিত বা মৃত কারও সন্ধান পাওয়া যায়নি। নিখোঁজদের সন্ধান পাওয়ার আশায় স্বজনরা অধীর আগ্রহে এখনো কারখানা এলাকায় সময় কাটাচ্ছেন। এদিকে, ছয়টি লাশ শনাক্তের অপেক্ষায় গতকাল পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সংরক্ষণ করা হয়েছে।

টাম্পাকো মালিকের গ্রেফতার দাবিতে মানববন্ধন : টাম্পাকোর মালিককে গ্রেফতার, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও হতাহত শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণের দাবিতে গাজীপুরে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ করেছে জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন গাজীপুর জেলা শাখা ও বাংলাদেশ কৃষি ফার্ম ফেডারেশন। তারা জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপিও প্রদান করে। এ সময় নেতৃবৃন্দ মালিকের গাফিলতি ও অবহেলার কারণে এ ধরনের দুর্ঘটনা যেন আর না ঘটে সে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান। তারা টাম্পাকোর মালিক ও দোষী কর্মকর্তাদের গ্রেফতার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও হতাহতদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ এবং আহতদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করারও দাবি জানান। এ সময় জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন জেলা শাখার সভাপতি মীর দেলোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ডা. এম এ কাশেম, বাংলাদেশ কৃষি ফার্ম ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মজিদ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে, বিস্ফোরণ ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কারখানার মালিক মকবুল হোসেনকে প্রধান আসামি করে টঙ্গী মডেল থানায় দুটি মামলা করা হয়েছে। তবে গতকাল পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow