Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:১৯
বিদেশ সফরে ১৮ মন্ত্রী, ১৩ সচিব
নিজামুল হক বিপুল

মন্ত্রিসভার ১৮ সদস্য বর্তমানে দেশের বাইরে রয়েছেন। এদের মধ্যে প্রতিমন্ত্রী পাঁচজন ও উপমন্ত্রী একজন। একই সঙ্গে সরকারের ১৩ সচিবও দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। এদের কেউ কেউ গেছেন রাষ্ট্রীয় সফরে, কেউবা গেছেন ব্যক্তিগত কাজে। আবার কেউ গেছেন বিদেশে অবস্থানরত অসুস্থ স্বজনকে দেখতে। এই প্রথম একসঙ্গে সরকারের এত মন্ত্রী ও সচিব দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। এর মধ্যে ছয়টি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও সচিব একসঙ্গে দেশের বাইরে রয়েছেন। যদিও সরকারি আদেশ অনুযায়ী একই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও সচিবের একসঙ্গে বিদেশ যাওয়ার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ আছে। আর একসঙ্গে একাধিক মন্ত্রণালয়ের নীতিনির্ধারক ও শীর্ষ কর্মকর্তারা দেশের বাইরে অবস্থান করার ফলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোতে ফাইলের স্তূপ জমে গেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।   

জানা গেছে, মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্যে জাতিসংঘের ৭১তম অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হয়ে নিউইয়র্কে গেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু। একই অধিবেশনে যোগ দিতে ভেনেজুয়েলা সফররত পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমেরও ভেনেজুয়েলা থেকে নিউইয়র্কে যাওয়ার কথা রয়েছে। জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দেওয়া ছাড়া দেশের বাইরে রয়েছেন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী মিলিয়ে আরও ১৩ জন। এদের মধ্যে পাটমন্ত্রী মুহা. ইমাজউদ্দিন প্রামাণিক অবস্থান করছেন যুক্তরাষ্ট্রে। তিনি যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও মেক্সিকোতে পাটের বাজার পর্যবেক্ষণ করতে গত মাসের ১৯ তারিখে ঢাকা ছেড়েছিলেন। বর্তমানে তিনি তার ছেলে-মেয়েদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, তিনি শারীরিক চেকআপও করাবেন। আগামী ২৯ তারিখ দেশে ফিরতে পারেন।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক গত ১৪ তারিখে যুক্তরাষ্ট্র গেছেন। সেখানে অবস্থানরত তার অসুস্থ ছোট ভাইকে দেখতে তিনি যুক্তরাষ্ট্র গেছেন বলে মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। আগামী ২৩ তারিখে তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র সফরে। তিনিও  গেছেন ব্যক্তিগত কাজে। আগামী রবিবার তিনি দেশে ফিরবেন বলে জানা গেছে। খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র গেছেন। তিনি ফিরবেন ২৮ সেপ্টেম্বর। শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু নর্থ-ইস্ট কানেক্টিভিটি কনফারেন্সে যোগ দিতে গতকাল ভারত গেছেন। তিনি ফিরবেন ২৪ সেপ্টেম্বর। বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন গত ৮ সেপ্টেম্বর জাপান গেছেন একটি সেমিনারে। সেখান থেকে ব্যাংকক হয়ে বর্তমানে তিনি কানাডায় অবস্থান করছেন। সেখানে তিনি ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন এর একটি সেমিনারে অংশ নিতে গেছেন বলে মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া নিয়মিত চেকআপের জন্য সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন। তিনিও আগামী সপ্তাহে দেশে ফিরবেন। তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গতকালই সিঙ্গাপুর গেছেন। তিনিও ফিরবেন আগামী সপ্তাহে।  মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হয়ে গিয়েছিলেন কানাডায়। তিনি বর্তমানে সেখানেই অবস্থান করছেন। আগামীকাল শুক্রবার তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান রয়েছেন সৌদি আরবে। হজ টিমের নেতা হজের আগেই সেখানে যান। আগামী সপ্তাহে তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। প্রতিমন্ত্রীদের মধ্যে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক রয়েছেন চীন সফরে। তিনি গত ১৮ সেপ্টেম্বর রবিবার দেশ ছেড়েছেন। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমও রয়েছেন সিঙ্গাপুরে। তিনিও দেশে ফিরবেন ২৬ সেপ্টেম্বর। পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম ব্যক্তিগত সফরে শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপ গিয়েছিলেন। গতকালই তিনি দেশে ফিরেছেন। পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব একটি সেমিনারে যোগ দিতে দক্ষিণ আফ্রিকা গেছেন। গত সোমবার রাতে তিনি দেশ ছাড়েন। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।  মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রী ছাড়া দেশের বাইরে রয়েছেন সরকারের ১৩ সচিব। এদের মধ্যে জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ, পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাহবুব আহমেদ, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান।

স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, শ্রম সচিব মিকাইল শিপার, কৃষি সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দিন আবদুল্লাহ, সেতু সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবদুল মালেক এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদশিক কর্মসংস্থান সচিব বেগম শামসুন্নাহার। এর বাইরে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদ ও লেজিসলেটিভ বিভাগের সচিব মো. শহিদুল হক রয়েছেন থাইল্যান্ডে। তিনি গেছেন ১৯ সেপ্টেম্বর। দেশে ফেরার কথা ২৪ সেপ্টেম্বর।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow