Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৪২
থেমে থাকা বাসে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কা, নিহত ৫
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে একটি কাভার্ডভ্যান কেড়ে নিয়েছে পাঁচ বাসযাত্রীর প্রাণ। এটি রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা বাসের পেছন দিকে দ্রুত গতিতে আঘাত হানে। গতকাল ভোর সাড়ে ৫টায় মিরসরাই বড়তাকিয়া বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

কাভার্ডভ্যান চাপায় যারা নিহত হয়েছেন তারা হলেন চট্টগ্রাম কর্ণফুলী পেপার মিলের (কেপিএম) মহাব্যবস্থাপক (এমটিএস) প্রকৌশলী সৈয়দ আহমদ, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তাওকির তাজাম্মুল সুস্মিত, শাহিদা আক্তার, কাভার্ডভ্যানের সহকারী মিজানুর রহমান মাখন এবং বাস সহকারী মো. আলী। জোরারগঞ্জ চৌধুরীহাট হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ ফরিদ উদ্দিন জানান, ঢাকা থেকে চট্টগ্রামমুখী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাসের ইঞ্জিন বিকল হয়ে গেলে তা রাস্তার পাশে রেখে মেরামত করা হচ্ছিল। এ সময় একইমুখী একটি কাভার্ডভ্যান বাসটির পেছন দিকে ধাক্কা দিলে এটি রাস্তায় দাঁড়ানো যাত্রীদের ওপর উঠে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন মারা যান। মিরসরাই প্রতিনিধি জানান, চট্টগ্রামগামী বেপরোয়া গতির কাভার্ডভ্যান নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহী বাসের পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে বাসের ৩ যাত্রী, বাসের সহকারী ও কাভার্ডভ্যানের সহকারী নিহত হন। পরে জোরারগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশ, মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স ও সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিস, এবং সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার তত্পরতা চালান।

পরীক্ষা শেষ করা হলো না সুস্মিতের : চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের যন্ত্রকৌশল বিভাগের প্রথম বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন তাওকির তাজাম্মুল সুস্মিত। আজ থেকে তার অসমাপ্ত সেমিস্টারের ফাইনাল পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করার কথা। কিন্তু তার আগেই জীবনের সব পরীক্ষার পাঠ চুকিয়ে দিতে হয়েছে সুস্মিতকে।

সুস্মিতের বাবা আবদুস সাত্তার একজন পুলিশ সদস্য। তিনি গাজীপুরে কর্মরত আছেন। তারা থাকেন ঢাকার মিরপুর ৭ নম্বরে। শুক্রবার রাতে ছেলেকে চট্টগ্রামের বাসে তুলে দিয়েছিলেন সাত্তার। পরদিন দুপুরে সন্তানের লাশ নিতে চট্টগ্রাম আসতে হয় তাকে। এ সময় তিনি বলেন, ‘বেপরোয়া চালকের হাতে আমার ছেলেকে জীবন দিতে হয়েছে। ছেলেকে হারিয়েছি, কিছু বলার নেই। সবাই আমার ছেলের জন্য দোয়া করবেন।’ লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি জানান, লক্ষ্মীপুর-ঢাকা মহাসড়কের চরচামিতা বাজারে গতকাল সকালে ট্রাক ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে মাইক্রোবাস চালক গিয়াস উদ্দিন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও চার যাত্রী। তাদের উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে আবদুল মান্নান ও জুয়েল নামে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক। নিহত গিয়াস উদ্দিন নোয়াখালীর আলী আহমদের ছেলে বলে জানা গেছে। তার লাশ সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। দিনাজপুর প্রতিনিধি জানান, নসিমনের চাকায় পিষ্ট হয়ে খানসামায় আছিরন বেগম (৬২) নামে এক বৃদ্ধা নিহত হয়েছেন। গতকাল সকাল সাড়ে ৮টার দিকে খানসামা উপজেলার কালামাটিয়া ব্রিজের পাশে এ ঘটনা ঘটে। আছিরন বেগম খানসামার আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের বাসুলী গ্রামের এফাজ উদ্দিনের স্ত্রী।

নাটোর প্রতিনিধি জানান, গুরুদাসপুরে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল আজিজ (৫০) গতকাল সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তিনি ভটভটিযোগে বনপাড়া যাওয়ার পথে বড়াইগ্রামের রেজুর মোড় নামক স্থানে এটি সিএনজির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটায়। আবদুল আজিজকে মারাত্মক আহত অবস্থায় উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। তিনি দাদুয়া গ্রামের মৃত আজগর আলীর ছেলে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে বগুড়া ডিবি পুলিশ বহনকারী একটি মাইক্রোবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা খেলে বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ নয় পুলিশ আহত হয়েছেন। গতকাল সকাল ৬টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-সোনা মসজিদ মহাসড়কের রসুলপুর মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আবদুল জলিল, ডিবি পুলিশের এসআই সোহেল রানা, আলমগীর, এএসআই মো. গোলাম মোস্তফা, কনস্টেবল মো. সেলিম, রাশেল আলী, রাসেল, জাহাঙ্গীর ও চালক শাহীন। এর মধ্যে এএসআই মো. মোস্তফা ও শাহীনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের চাঁপাইনবাবগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি জানান, ঠাকুরগাঁও-দিনাজপুর মহাসড়কে গেটলক ও বিআরটিসি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন। গতকাল বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বড় খোঁচাবাড়ী নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, রংপুর থেকে ছেড়ে আসা একটি বিআরটিসি বাস সদর উপজেলার বড় খোঁচাবাড়ী নামক স্থানে পৌঁছালে ঠাকুরগাঁও থেকে ছেড়ে যাওয়া রংপুরগামী একটি গেটলক বাসকে মুখোমুখি ধাক্কা দেয়। এতে গেটলকের চালকসহ ৩০ জন আহত হন। একে কেন্দ্র করে প্রায় ২ ঘণ্টা সড়কে যান চলাচল বন্ধ ছিল। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মশিউর রহমান জানান, বিআরটিসি বাসটির ব্রেক ফেল করায় এ ঘটনা ঘটে। এতে কোনো প্রাণহানি ঘটেনি।

up-arrow