Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪২
ঢাকার উত্তরা ও রমনাবাসী প্রথম পাচ্ছেন স্মার্টকার্ড
নিজস্ব প্রতিবেদক

পরীক্ষামূলকভাবে আগামী ৩ অক্টোবর ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের উত্তরা ও রমনা এলাকার চারটি ওয়ার্ডে উন্নতমানের জাতীয় পরিচয়পত্র স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু হচ্ছে। তিন সপ্তাহ এ বিতরণকাজ চলবে। এ কাজের অভিজ্ঞতা নিয়ে পরে ঢাকায় পুরোদমে বিতরণ শুরু করবে নির্বাচন কমিশন ইসি। এ ছাড়া ২ অক্টোবর উদ্বোধনের দিনই রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে স্মার্টকার্ড দেওয়া হবে। পাশাপাশি ওই দিন জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়দের হাতে স্মার্টকার্ড তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী। এ ছাড়া হেল্পলাইনে ফোন করে স্মার্টকার্ডের তথ্য জানার ব্যবস্থাও করেছে নির্বাচন কমিশন। এ ক্ষেত্রে স্মার্টকার্ড বিতরণসংক্রান্ত তথ্য জানতে যে কোনো মোবাইল ফোন থেকে ১০৫ নম্বরে কল করার অনুরোধ জানিয়েছেন এআইডি উইং।

গতকাল জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, প্রধানমন্ত্রী ঢাকায় এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। এরপরই ঢাকা ও কুড়িগ্রামে বিতরণ শুরু হবে। তিনি বলেন, পরীক্ষামূলকভাবে ঢাকা উত্তরের উত্তরা ও ঢাকা দক্ষিণের রমনা থানায় স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু হবে। এ দুই থানায় কাজের অভিজ্ঞতা নিয়ে অন্য থানায় কার্যক্রম শুরু হবে। এ বিষয়ে গণমাধ্যমে শিগগির বিস্তারিতভাবে প্রচার করা হবে। এ বিষয়ে উত্তরা থানা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহজালাল জানান, পাইলটিং হিসেবে উত্তরার ১ নম্বর ওয়ার্ডের ৬৩ হাজারেরও বেশি ভোটারের কাছে স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু হবে। ৩ থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজে বিতরণ করা হবে। এ সময় ভোটারদের ল্যামিনেটেড জাতীয় পরিচয়পত্র ফেরত নেওয়া হবে এবং ১০ আঙ্গুলের ছাপ ও চোখের আইরিসের ছাপ নিয়ে স্মার্টকার্ড দেওয়া হবে। এদিকে রমনা থানার ১৯, ২০ ও ২১ নম্বর ওয়ার্ডে পরীক্ষামূলক কার্ড বিতরণ করা হবে বলে জানান থানা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুবা মমতা হেনা। তিনি বলেন, এ তিন ওয়ার্ডে অর্ধলক্ষাধিক ভোটার রয়েছেন। এখানে ভিআইপিদের বসবাস বেশি আবার ভাসমান ভোটার কম; সে ক্ষেত্রে বিতরণ কাজে কী ধরনের চ্যালেঞ্জ রয়েছে তাও উঠে আসবে পাইলটিংয়ে। এই কর্মকর্তা জানান, ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটাররা সিদ্ধেশ্বরী গার্লস হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, ২০ নম্বর ওয়ার্ডে সেগুনবাগিচা হাইস্কুল ও ২১ নম্বর ওয়ার্ডে উদয়ন স্কুলে ৩ থেকে ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত ভোটাররা এসে স্মার্টকার্ড নিতে পারবেন।

রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও ক্রিকেটারদের মাঝে বিতরণ : ইসি সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, ২ অক্টোবর স্মার্টকার্ড বিতরণ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের স্মার্টকার্ডটি প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ। এরপরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্মার্টকার্ড তার হাতে তুলে দেবেন সিইসি। প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়দের কার্ড হস্তান্তর করবেন। রাষ্ট্রপতির কার্ডটি পরে বঙ্গভবনে সিইসি ও অন্য কমিশনাররা তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে হস্তান্তর করবেন।

ডায়াল ১০৫ : জাতীয় পরিচয়পত্রসংক্রান্ত যে কোনো ধরনের সেবার বিষয়ে তথ্য জানাতে হেল্প ডেস্ক রাখা হয়েছে। নির্ধারিত নম্বরে কল করলে নাগরিকদের তথ্য জানাবেন জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন বিভাগের কর্মকর্তারা। স্মার্টকার্ড বিতরণসংক্রান্ত তথ্য জানতে যে কোনো মোবাইল ফোন থেকে ১০৫ নম্বরে কল করার অনুরোধ জানিয়েছেন এআইডি উইং।

রাজধানীর বাইরে কুড়িগ্রামে : ৩ অক্টোবর রাজধানীতে পাইলটিং কার্যক্রম শুরুর পাশাপাশি কুড়িগ্রামেও বিতরণ শুরু হবে। এনআইডি উইংয়ে মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার সুলতানুজ্জামান জানান, কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় ভোটারদের স্মার্টকার্ড দেওয়া হবে। এ ক্ষেত্রে এখানকার তিনটি ইউনিয়নের বিলুপ্ত ছিটমহলবাসীও স্মার্টকার্ড পাবেন। ঢাকা ও কুড়িগ্রামের পর পর্যায়ক্রমে সারা দেশে বিতরণে যাবেন তারা। আগামী বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে এ কার্যক্রম শেষ করার প্রকল্প রয়েছে ইসির।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow