Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪৪
ঝিনাইদহে ডিবির ধাওয়া খেয়ে যুবক নিহত
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের বাড়িবাথান নামক স্থানে বাবলুর রহমান (২৯) নামে এক ওষুধ ব্যবসায়ী মোটরসাইকেলসহ গর্তে পড়ে নিহত হয়েছেন। স্বজনদের অভিযোগ, ডিবি পুলিশের ধাওয়া খেয়ে গর্তে পড়ে নিহত হয়েছেন তিনি।

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ। নিহত বাবলু ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বানিয়াকান্দর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বেলা ৩টার দিকে ঝিনাইদহ গান্না সড়কের বাড়িবাথান এলাকায় আমিরুল মাস্টারের বাড়ির কাছে। সদর উপজেলার জামতলা বাজারে বাবলুর একটি ওষুধের দোকান আছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার সময় সাদা পোশাকের ডিবি পুলিশ ওই সড়কে মোটরসাইকেলের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করছিল। এ সময় বাবলু জামতলা বাজার থেকে ঝিনাইদহে যাচ্ছিলেন। সামনে সাদা পোশাকের পুলিশ ইন্দিরার মোড়ে মোটরসাইকেল ধরছে এমন দৃশ্য দেখে তিনি দ্রুত নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের দিকে ফিরে আসছিলেন। এ সময় ডিবি পুলিশ পিছু নেয় বাবলুর। একপর্যায়ে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে রাস্তার পাশে একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে গর্তে পড়ে যান বাবলু। পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসক নূপুর জানিয়েছেন, বাবলুর মাথার পেছনে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তা লাঠির, নাকি অন্য কিছুর ময়নাতদন্ত ছাড়া বলা যাচ্ছে না। বাবলুর ভগ্নিপতি মশিউর রহমান জানান, তার মোটরসাইকেলের কাগজপত্র ছিল না। কাগজ করতে বেশ কয়েক দিন ধরে বিআরটিএ অফিসে ঘুরছিলেন বাবলু। তিনি শুনেছেন, সাদা পোশাকের পুলিশের ধাওয়া খেয়ে বাবলু পালাতে গিয়ে দুর্ঘটনায় পড়েন। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ জানান, পুলিশ সেখানে নম্বর-প্লেটবিহীন মোটরসাইকেলের কাগজপত্র পরীক্ষা করছিল। এ সময় বাবলু পুলিশ দেখে দ্রুত পালাতে গিয়ে দুর্ঘটনায় পড়ে নিহত হন। পুলিশ তাকে ধাওয়া বা লাঠি দিয়ে আঘাত করেনি বলে তিনি দাবি করেন। ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্রনাথ সরকার জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় বাবলুর মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ তাকে ধাওয়া করেনি।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow