Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪৫
অষ্টম কলাম
আওয়ামী লীগ থেকে মন্ত্রীকে বহিষ্কার দাবিতে যুবলীগের মানববন্ধন
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকারকে নিয়ে মিথ্যা ও আপত্তিকর বক্তব্য দেওয়ায় দল থেকে মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হকের অপসারণ চেয়ে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে এবার জেলা যুবলীগ। গতকাল বেলা ১১টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব চত্বরে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এতে জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট শাহানুর ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মজিবুর রহমানর বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহবুবুল আলম খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শাহ আলম সরকার, বিজয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া, জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সালাহউদ্দিন সরকার প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘মন্ত্রী ছায়েদুল হক ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে জড়িয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন, তা মিথ্যা ও আপত্তিকর। এ ঘটনায় আমরা অবিলম্বে আওয়ামী লীগ থেকে তাকে অপসারণের দাবি জানাচ্ছি। তার বক্তব্য এক সপ্তাহের মধ্যে প্রত্যাহার না করলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হবে। ’

উল্লেখ্য, বিগত ইউপি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে দলের শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পদ থেকে মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হককে অব্যাহতি দেয় জেলা আওয়ামী লীগ। এ নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর মন্ত্রী ছায়েদুল হক একটি জাতীয় দৈনিকে দেওয়া বক্তব্যে বলেন, ‘জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকারের অনুরোধে আমি নাসিরনগরে প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়ায় যুক্ত হই। পরে জেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ১ কোটি ১৫ লাখ টাকার মনোনয়ন-বাণিজ্যের মাধ্যমে আমার মনোনীত প্রার্থী বদল করে হরিপুর ইউনিয়নে প্রতিষ্ঠিত ‘মদ ব্যবসায়ী’ দেওয়ান আতিকুর রহমান আঁখি ও দলে নবাগত গোলাম সামদানিকে প্রার্থী করেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow