Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ৩ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩ অক্টোবর, ২০১৬ ০২:২৬
বেসিক ব্যাংক নিয়ে সংসদে যা বললেন অর্থমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

সংসদে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বেসিক ব্যাংকের জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নাম প্রকাশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এর মধ্যে ব্যাংকের ২৭ জন কর্মকর্তাসহ ৫৬টি প্রতিষ্ঠান ও আট সার্ভেয়ার প্রতিষ্ঠান এ জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত বলে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কর্তৃক অভিযুক্ত হয়েছে বলে জানান তিনি।

সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনের গতকালের বৈঠকে জাতীয় পার্টির এমপি সেলিম উদ্দিনের (সিলেট-৫) তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান মন্ত্রী। সংসদে মন্ত্রীর দেওয়া তালিকা অনুযায়ী প্রাথমিকভাবে ব্যাংকের ২৭ জন কর্মকর্তার মধ্যে রয়েছেন—সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে এম সাজেদুর রহমান, সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ফকরুল ইসলাম, সাবেক অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক শেখ মঞ্জুর মোরশেদ, চাকরিচ্যুত উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ফজলুস সোবহান, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক কনক কুমার পুরকায়স্থ, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (সাময়িক বরখাস্ত) এ মোনায়েম খান, চাকরিচ্যুত উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সেলিম, মহাব্যবস্থাপক (সাময়িক বরখাস্ত) জয়নুল আবেদিন চৌধুরী, মহাব্যবস্থাপক মোজাম্মেল হোসেন, মহাব্যবস্থাপক (সাময়িক বরখাস্ত) খন্দকার শামীম হোসেন, মহাব্যবস্থাপক মো. মনিরুজ্জামান, মহাব্যবস্থাপক গোলাম ফারুক খান, চাকরিচ্যুত মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ আলী, সাবেক উপমহাব্যবস্থাপক কোরবান আলী, উপমহাব্যবস্থাপক ওমর ফারুক, চাকরিচ্যুত উপমহাব্যবস্থাপক শিপার আহমেদ, চাকরিচ্যুত উপমহাব্যবস্থাপক এস এম ওয়ালিউল্লাহ, উপমহাব্যবস্থাপক জহির উদ্দীন, উপমহাব্যবস্থাপক ইমরুল ইসলাম, উপমহাব্যবস্থাপক আবদুস সবুর, উপমহাব্যবস্থাপক আবদুস সাত্তার খান, উপমহাব্যবস্থাপক পলাশ দাশগুপ্ত, সহকারী মহাব্যবস্থাপক (সাময়িক বরখাস্ত) একরামুল বারী, সাবেক সহকারী মহাব্যবস্থাপক সরোয়ার হোসেন, ব্যবস্থাপক মুহিবুল হক, চাকরিচ্যুত উপব্যবস্থাপক এস এম জাহিদ হাসান ও উপব্যবস্থাপক এন এ তৌফিকুল আলম। এ ছাড়া উল্লেখযোগ্য প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে আছে—আজাদ ট্রেডিং, ভাসাবী ফ্যাশন লি., তাহমিনা ডেনিম লি., লাইফ স্টাইল ফ্যাশন মেকার লি., তাহমিনা নিটওয়্যার লি., ফারশি ইন্টারন্যাশনাল লি., খাদিজা অ্যান্ড সন্স, লিটিল ওয়ার্ল্ড, এআরএসএস এন্টারপ্রাইজ, আমিরা শিপিং এজেন্সি, এশিয়ান শিপিং বিডি, এসএফজি শিপিং লাইন লি., মনিকা ট্রেডিং ইন্টারন্যাশনাল, ফাস্ট অ্যান্ড বেস্ট ট্রেড ইমপেক্স, ট্রেড হাউস, এশিয়ান ফুড ট্রেডিং অ্যান্ড কো., সুরমা স্টিল অ্যান্ড স্টিল ট্রেডিং কো., সিলভারকম ট্রেডিং, সিনটেক্স, বি আলম শিপিং লাইনস, এস এল ডিজাইনার লি., তানজিনা ফ্যাশন, ফিয়াজ এন্টারপ্রাইজ, নাহার গার্ডেন (প্রা.) লি., এল আর ট্রেডিং, সৈয়দ ট্রেডার্স, রুদ্র স্পেশালাইজড কোল্ড স্টোরেজ লি., নিউ অটো ডিফাইন, টেলিউইজ ইন্টারন্যাশনাল লি., ডায়ানামিক ট্রেডিং, আহমেদ ওয়েল মিলস লি., বীথি এন্টারপ্রাইজ, এমারেল্ড অটো ব্রিকস লি., প্রোপেল ইন্টারন্যাশনাল লি., আরআই এন্টারপ্রাইজ, গুঞ্জন অ্যাগ্রো এরোমেটিক অটো রাইস মিল, হক ট্রেডিং, ভয়েস এন্টারপ্রাইজ লি., হাসিব এন্টারপ্রাইজ, এসওএস ব্রাদার্স, আলী কন্সট্রাকশন অ্যান্ড সাপ্লায়ার্স, বাশার এন্টারপ্রাইজ, এমারেল্ড ওয়েল লি., সিমেক্স লি., আর কে ফুডস লি., সৈয়দ রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড ডেভেলপারস লি., রিলায়েন্স শিপিং লাইনস, সৈয়দ কন্সট্রাকশনস লি., নীলসাগর অ্যাগ্রো ইন্ডাস্টিজ লি. (ফিড মিল ইউনিট), পারুমা ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস, এমারেল্ড ট্রেডার্স, বর্ষণ অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লি. ও আজবিহা অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লি.। এ ছাড়া আটটি সার্ভেয়ার প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে—এস ডি সার্ভে ফার্ম, রূপসা সার্ভেয়ার, পিএসআর, বিডিবিএস অ্যাডজাস্টার, ইউনিক সার্ভে সার্ভিস ব্যুরো, প্রফেশনাল অ্যাসোসিয়েটস, দেশ পরিদর্শন কো. এবং আইএএইচএস ইন্সপেকশন। এ প্রতিষ্ঠানগুলো দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত বলে জানান অর্থমন্ত্রী। অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০১০-২০১৪ সালে বেসিক ব্যাংকে জালিয়াতিতে জড়িত হওয়ায় ইতিমধ্যে উল্লিখিত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এ ছাড়া আরও কোনো কর্মকর্তা জড়িত আছেন কি না তা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow