Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:২০
ফার্মগেটে মুন্না হত্যা
খুনি আকাশ আত্মগোপনে
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাকিবুল হাসান মুন্নার খুনি আকাশ ও তার সহযোগীদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ক্রিকেট খেলার বিরোধকে কেন্দ্র করে আকাশের ছুরিকাঘাতে মৃত্যু হয় ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরিজ স্কুল ও  কলেজ শিক্ষার্থী মুন্নার।

ঘটনার পর রাতে মুন্নার বড় ভাই রিয়াজুল ইসলাম আশিক তেজগাঁও থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলায় আকাশ ও হাফিজসহ বেশ কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। গতকাল মুন্নার লাশ ময়নাতদন্ত শেষে আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত করেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ। মর্গ সূত্র জানিয়েছে, ছুরিকাঘাতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে মুন্নার মৃত্যু হয়েছে। এর আগে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে লাশ আনা হয় পূর্ব রাজাবাজারের গ্রিন রোডে। সেখানে আইবিএ হোস্টেলের ফটকে কিছুক্ষণ স্থানীয়দের দেখার জন্য লাশ উন্মুক্ত রাখা হয়। এ সময় ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরিজ স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা খুনি আকাশের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করতে চায়। পরে খুনিদের গ্রেফতারের বিষয়ে স্থানীয় ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরিদুর রহমান খান ইরানের আশ্বাসে সেই কর্মসূচি তিন দিনের জন্য স্থগিত করে তারা। জানতে চাইলে তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার বলেন, কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের আমরা চিহ্নিত করেছি। ঘটনার পর থেকে তারা গাঢাকা দিয়েছে। তাদের ধরতে আমাদের অভিযান চলছে। মুন্নার ছোট ভাই রিয়াদের বন্ধু নাইম জানান, রিয়াদ আর আকাশ স্থানীয় নাজনীন স্কুল ও কলেজের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

গত কয়েক দিন আগে স্কুল মাঠে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে রিয়াদের সঙ্গে আকাশের বিরোধ হয়। বিষয়টি জানতে পেরে রিয়াদের বড় ভাই মুন্না ফার্মগেটের মোস্তফা গলিতে আকাশের সঙ্গে কথা বলতে যায়। গলিতে থাকা আকাশসহ বেশ কয়েকজন তাকে ছুরিকাঘাত করে। তাত্ক্ষণিকভাবে গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow