Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৪৩
দারিদ্র্য বিমোচন দিবস আজ
ভারত পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক

দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে ভারত, পাকিস্তানের চেয়েও এগিয়ে বাংলাদেশ। আজ আন্তর্জাতিক দারিদ্র্য বিমোচন দিবস।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও দিবসটি পালিত হচ্ছে। এ উপলক্ষে বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশ সফর করছেন। তিনি ঢাকায় ও ঢাকার বাইরে বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নেবেন। এদিকে, বিশ্বব্যাংক বলছে, ছয় বছরে বাংলাদেশে অতিদরিদ্রের হার কমেছে ৪ দশমিক ৫ শতাংশ। দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের দেশ ভারত, পাকিস্তান ও ভুটানের চেয়েও এগিয়ে রয়েছে বলে তথ্য প্রকাশ করেছে বিশ্বব্যাংক। সংস্থাটি বলছে, দেশে উচ্চ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ধারা অব?্যাহত থাকায় এটা সম্ভব হয়েছে। সর্বশেষ ২০১৫-১৬ অর্থবছর শেষে বাংলাদেশে অতিদরিদ্রের হার কমে ১২ দশমিক ৯ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। আর ২০১০-১১ অর্থবছরে বাংলাদেশে এ হার ছিল ১৭ দশমিক ৪ শতাংশ। বিশ্বব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী যাদের দৈনিক আয় ১ দশমিক ৯০ ডলারের (প্রায় ১৪৫ টাকা) কম তারাই অতিদরিদ্র। আর এটা ২০১১ সালে ছিল সোয়া ১ ডলারের (১১৫ টাকা) কম। বিশ্বব্যাংক বলছে, গত অর্থবছরে অর্জিত ৭ দশমিক ১ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধিকে ভিত্তি ধরে তারা অতিদরিদ্রের হার হিসাব করেছে। প্রত্যেক অর্থবছরের জিডিপি প্রবৃদ্ধির ভিত্তিকে বিচার করে বিশ্বব্যাংক হতদরিদ্রের হার ঠিক করে। সে হিসাবে ২০১০-১১ অর্থবছরে বাংলাদেশে অতিদরিদ্রের হার ছিল ১৭ দশমিক ৪ শতাংশ। ২০১১-১২ অর্থবছরে ছিল ১৬ দশমিক ৪ শতাংশ। ২০১২-১৩ অর্থবছরে ১৫ দশমিক ৫ শতাংশ, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ১৪ দশমিক ৭ শতাংশ, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ছিল ১৩ দশমিক ৮ শতাংশ। এবার তা কমে দাঁড়িয়েছে ১২ দশমিক ৯ শতাংশে। জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অনুযায়ী ২০৩০ সালের মধ্যে দরিদ্রের হার শূনে?্য নামিয়ে আনা সম্ভব হবে। নিয়ম অনুযায়ী অতিদরিদ্রের হার ৩ শতাংশের নিচে নেমে এলেই তাকে শূন্য ধরা হয়। এ লক্ষ্য অর্জন করতে হলে বাংলাদেশকে ৮ দশমিক ৮ শতাংশ হারে প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে হবে।

up-arrow