Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:২০
কারা আসছেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির তিন শূন্যপদে
শফিউল আলম দোলন

কারা আসছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির তিন শূন্য পদে। এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনা চলছে দলের ভিতরে ও বাইরে। অনেক সিনিয়র নেতার নামই ওঠে আসছে। এর মধ্যে এখন পর্যন্ত প্রচারণার ‘র‌্যাঙ্কিং-এ’ বেশি এগিয়ে আছেন যে পাঁচজন তারা হলেন— দলের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, সাদেক হোসেন খোকা, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমদ ও আবদুল আউয়াল মিন্টু। এর বাইরেও আলোচনায় রয়েছেন— দলের ভাইস চেয়ারম্যান এম মোর্শেদ খান, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, ড. ওসমান ফারুক, বেগম সেলিমা রহমান, মোহাম্মদ শাহজাহান, মিজানুর রহমান মিনু প্রমুখ।

চলতি বছরের ৬ আগস্ট ঘোষিত বিএনপির ১৯ সদস্যের স্থায়ী কমিটির ১৭ ও ১৮ নম্বর ঘর দুটি খালি রাখা হয়। এতে কোনো সদস্যের নাম উল্লেখ করা হয়নি। এরপর ২৭ সেপ্টেম্বর স্থায়ী কমিটির ছয় নম্বর সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহর মৃত্যুর পর আরও একটি পদ শূন্য হয়। এর ফলে দলের স্থায়ী কমিটিতে শূন্য পদের সংখ্যা এখন তিনটি। তবে এবার স্থায়ী কমিটির পরিধি বাড়ানোরও একটি প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। অন্তত পাঁচজন নতুন মুখ এ কমিটিতে স্থান পেতে পারেন বলে ধারণা করছেন দলের কয়েকজন নীতিনির্ধারক।

৬ আগস্ট নতুন স্থায়ী কমিটিতে ১৯ সদস্যের মধ্যে ১৭ জনের নাম ঘোষণা করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ওই সময় বাকি দুজনের নাম পরে জানানো হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। এরপর স্থায়ী কমিটির ১৭ ও ১৮ নম্বর স্থানে তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমান ও ছোট ছেলে মরহুম আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমানের নামও শোনা যায়।

এ নিয়ে বিএনপি ঘরানার বুদ্ধিজীবীদের মধ্যে আলোচনাও ছিল। যদিও বিএনপির একাধিক ভাইস চেয়ারম্যান এ ধরনের সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিয়েছেন। দলের স্থায়ী কমিটির শূন্য তিন পদে কারা আসতে পারেন জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, বিষয়টি নিয়ে বেগম খালেদা জিয়া ভাবছেন। সময় হলেই আপনারা সবই জানতে পারবেন। বর্তমানে স্থায়ী কমিটিতে রয়েছেন— বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমান, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, তরিকুল ইসলাম, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ (মৃত), এম কে আনোয়ার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও সালাহউদ্দিন আহমেদ। বিএনপির একাধিক সূত্র জানায়, স্থায়ী কমিটিতে শূন্য পদে নিয়োগের ব্যাপারে আলোচনায় যারা এগিয়ে আছেন তাদের মধ্যে আবদুল্লাহ আল নোমান অন্যতম। তার ব্যাপারে দলের সর্বস্তরেই ইতিবাচক আলোচনা আছে। যদিও তিনি মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার কারণে সাকা পরিবারের যে বিরোধিতা করেন, সে ব্যাপারে বিএনপির অনেক নেতা-কর্মী দ্বিমত পোষণ করেন। এরপরও বিএনপির একাধিক সিনিয়র নেতার মতে, নোমানের পদ পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তেমনি রয়েছে মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমদেরও। দলের ভাইস চেয়ারম্যান বর্ষীয়ান নেতা শাহ মোয়াজ্জেম হোসেনের নামটিও রয়েছে আলোচনার শীর্ষে। এসব বিষয়ে স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের বক্তব্য হলো- এখনো তিনটি পদ খালি আছে। সম্ভাবনা তো শেষ হয়ে যায়নি। এ ছাড়া বিষয়টি একান্তভাবেই চেয়ারপারসনের এখতিয়ার। এ সম্পর্কে আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, আমার কিছু বলার নেই। চেয়ারপারসনের সিদ্ধান্তই আমার সিদ্ধান্ত।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow