Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০২:৪১
চার্জ গঠনের দিনই রায়
ধর্ষকের যাবজ্জীবন
গাজীপুর প্রতিনিধি

আদালতে দোষ স্বীকার করায় গাজীপুরে ধর্ষণ মামলায় চার্জ গঠনের দিনই এক আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম দণ্ডাদেশ প্রদান করা হয়েছে। গাজীপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক সৈয়দ জাহেদ মনসুর গতকাল এ আদেশ দেন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামি হুমায়ুন কবির (৩০) ময়মনসিংহের নান্দাইল থানার দদার গ্রামের আব্বাস উদ্দিনের ছেলে।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার মেয়েটির বাড়ি কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে। তিনি গাজীপুরের সাইনবোর্ড এলাকায় একটি পোশাক কারখানায় চাকরি ও বসবাস করতেন। পরিচয়ের সূত্র ধরে হুমায়ুন মেয়েটিকে বিবাহের প্রতিশ্রুতি দেয়। ২০১১ সালের ১১ এপ্রিল রাতে মেয়েটির ভাড়া বাসায় ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে ধর্ষণ করে। এরপর তারা স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া থাকত। মেয়েটি বার বার তাগিদ দিলেও হুমায়ুন তাকে বিয়ে করেনি।

একপর্যায়ে ভিকটিম অন্তঃসত্ত্বা হয়ে যায় এবং কন্যাসন্তান প্রসব করেন। তার পরও হুমায়ুন তাকে বিয়ে না করে নানা অপপ্রচার চালাতে থাকে।

২০১৫ সালের ২৩ মে হুমায়ুনকে আসামি করে জয়দেবপুর থানায় অভিযোগ করেন মেয়েটি। তদন্তকারী কর্মকর্তা জয়দেবপুর থানার এসআই অজয় চক্রবর্তী গত ৩১ ডিসেম্বর হুমায়ুনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেন।

গাজীপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি ফজলুল কাদের জানান, মঙ্গলবার আসামির উপস্থিতিতে এ মামলার চার্জ গঠনের দিন ধার্য ছিল। এ দিন বিচারকের সামনে আসামি নিজের দোষ স্বীকার করায় এবং এ ধরনের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য চার্জ গঠনের দিনই রায় ঘোষণা করা হয়েছে। রায়ে আরও বলা হয়েছে ধর্ষণের ফলে জন্ম লাভকারী কন্যা শিশুটির ভরণ পোষণ বিবাহ না হওয়া পর্যন্ত রাষ্ট্র বহন করবে। রাষ্ট্র এই মর্মে ভরণ পোষণের পরিমাণ নির্ধারণ করবে এবং প্রদেয় অর্থ আসামি হুমায়ুন কবিরের কাছ থেকে আদায় করতে পারবেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow