Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩৩
সিরাজগঞ্জে মেয়রের গুলি সাংবাদিকসহ আহত ৩
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা হালিমুল হক মীরুর শটগানের গুলিতে সাংবাদিকসহ তিনজন আহত হয়েছেন। গতকাল বিকালে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে দৈনিক সমকালের শাহজাদপুর প্রতিনিধি আবদুল হাকিম শিমুলকে গুরুতর অবস্থায় বগুড়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল হক ও পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আবদুর রহিমসহ স্থানীয়রা জানান, শাহজাদপুরের দিলরুবা বাস টার্মিনাল থেকে  উপজেলা সদর পর্যন্ত রাস্তার টেন্ডার হলেও ঠিকাদার দীর্ঘদিন কাজ শুরু করছে না। স্থানীয় লোকজনকে নিয়ে তার শ্যালক ছাত্রলীগ নেতা বিজয় ঠিকাদারের বিপক্ষে কথা বলায় মেয়রের লোকজন ক্ষুব্ধ হয়। এরই জের ধরে দুপুর দেড়টার দিকে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি বিজয়কে মেয়রের ভাই হাসিবুল হক পিন্টু ও মিন্টু সন্ত্রাসীদের নিয়ে কালীবাড়ি মোড় থেকে তুলে নিয়ে মেয়রের বাড়িতে মারপিট করে হাত-পা ভেঙে দেয়। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে বিজয়ের গ্রামের বাড়ি কান্দাপাড়ার লোকজন ও ছাত্রলীগ-আওয়ামী লীগ নেতারা নগরবাড়ী-বগুড়া মহাসড়ক অবরোধ করে। পরে বিজয়ের এলাকাবাসী ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা মিছিল নিয়ে মেয়রের বাড়ির দিকে যায়। বাড়ির কাছে পৌঁছলে কতিপয় ছেলে বাড়ি লক্ষ্য করে ঢিল ছুড়ে। এ সময় মেয়র ও তার ভাই মিছিলকারীদের ওপর ককটেল ও বোমা হামলা চালায়। একপর্যায়ে শটগান থেকে গুলি ছোড়ে।

গুলিতে সাংবাদিকসহ তিনজন আহত হয়। এদিকে ছবি তোলার সময় মেয়রের গুলিতে সাংবাদিক আহতের প্রতিবাদে তাত্ক্ষণিক উপজেলার সব সাংবাদিক বিক্ষোভ মিছিল ও থানা ঘেরাও করে সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে মেয়রকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। শাহজাদপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহবুব ওয়াহিদ কাজল জানান, দুপুরে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি বিজয়কে মেয়রের বাসায় তুলে নিয়ে হাত ও পা ভেঙে দেয় মেয়রের ভাই পিন্টু। এ ঘটনার প্রতিবাদে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল করে। ওই মিছিলে গুলিবর্ষণ করে মেয়র হালিমুল হক মিরু। এ বিষয়ে মেয়র হালিমুল হক মীরু জানান, মিছিল নিয়ে সন্ত্রাসীরা আমার বাসায় হামলা চালায়। হামলায় আমার পরিবারের তিনজন আহত হয়েছে। কাউকে লক্ষ্য করে নয় ভয় দেখানোর জন্য শটগানের গুলি ছুড়েছি। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শাহজাদপুর সার্কেল) আবুল হাসনাত জানান, বিজয়কে মারপিট করায় মেয়রের বাসা থেকে পুলিশ তার ভাই পিন্টুকে আটক করা হয়েছে। এ ছাড়াও এক রাউন্ড গুলি ও এক রাউন্ড গুলির খোসাসহ মেয়রের শটগান জব্দ করা হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow