Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:০০
খাদিজা দুই-এক দিনের ভিতরে বাড়ি ফিরছেন
সাভার প্রতিনিধি
খাদিজা দুই-এক দিনের ভিতরে বাড়ি ফিরছেন

সাভার সিআরপিতে দীর্ঘ তিন মাস চিকিৎসা শেষে খাদিজা বেগম নার্গিস সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তবে পুরোপুরি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে তাকে আরও কয়েক বছর চিকিৎসা নিতে হবে।

দু-এক দিনের মধ্যে বাড়ি ফিরে যেতে পারবেন খাদিজা। গতকাল বেলা ১১টায় সিআরপি রেডওয়ে হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান খাজিদার চিকিৎসক ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সিআরপি মেডিকেল সার্ভিসেস উইংয়ের প্রধান চিকিৎসক সাঈদ উদ্দিন হেলাল বলেন, খাদিজা এখন হাঁটাচলা ও কথা বলতে পারেন। এমনকি দৈনন্দিন সব কাজ একাই করতে পারেন। খাদিজার স্মৃতিশক্তিও ফিরে এসেছে। তাই তিনি এখন আবার পড়াশোনা শুরু করতে পারবেন। সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী, চিকিৎসক, গণমাধ্যমকর্মীসহ দেশের সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে খাদিজা বলেন, ‘আমি এখন প্রায় সুস্থ। দৈনন্দিন সব কাজ করতে পারি। ’ সংবাদ সম্মেলন শেষে একান্ত আলাপকালে সিআরপির সিনিয়র ফিজিওথেরাপিস্ট ও নিউরোলজি ডিপার্টমেন্টের ইনচার্জ ফারজানা শারমিন রুমানা বলেন, ‘চিকিৎসকদের রাত-দিন সেবা আর অক্লান্ত প্রচেষ্টার কারণে খাদিজা দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এখন তিনি বাড়ি ফেরার জন্য প্রস্তুত। চলার জন্য মৌলিক সব ধরনের কাজ তিনি একা একাই করতে পারেন। বাড়ি ফিরে যেতে খাদিজার আর কোনো বাধা নেই। তাকে যখন সিআরপিতে ফিজিওথেরাপির জন্য আনা হয় তখন তার শরীরের বাঁ পাশ একেবারেই অবশ ছিল। হুইল চেয়ার ছাড়া তিনি চলাফেরা করতে পারতেন না। পাশাপাশি মানসিক অবস্থাও দুর্বল ছিল। কিন্তু আমাদের একনিষ্ঠ প্রচেষ্টায় খাদিজা এখন পুরোপুরি সুস্থ। তিনি তার দৈনন্দিন কর্মকাণ্ড একাই করতে পারেন। খাওয়া ও গোসলসহ অন্যান্য মৌলিক কাজগুলোর জন্য এখন আর তাকে কারও ওপর নির্ভর করে থাকতে হবে না। ’ তিনি বলেন, ‘প্রথম অবস্থায় খাদিজার মানসিক অবস্থাও ভালো ছিল না। শারীরিক সুস্থতা ফিরে পাওয়ার ওপর আমাদের আস্থা থাকলেও মানসিক অবস্থাটা নিয়ে চিন্তিত ছিল সবাই। মানসিক সমস্যা নিয়ে একজন সাইকোলজিস্ট খাদিজার নিয়মিত কাউন্সেলিং করতেন। তিনি আগে পরিবারের সদস্যদের জন্য, বিশেষ করে মা-বাবার কথা মনে করে একান্তে কাঁদতেন। আর সে জন্যই কিছুদিন আগে তাকে সিলেটে নিজ বাড়িতে পাঠানো হয়েছিল। এ ছাড়া তার সুস্থতা নিয়ে মাঝেমধ্যেই চিকিৎসকরা বোর্ড মিটিং করতেন। ফলে আজ খাদিজা তার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পেরেছেন। ’ উল্লেখ্য, সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা গত বছর ৩ অক্টোবর বিকালে এমসি কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রে বিএ (পাস) পরীক্ষা দিয়ে বের হওয়ার সময় হামলার শিকার হন। তাকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেন ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলম।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow