Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:০৫
ছাত্রদলের হামলায় ১৩ পুলিশ আহত
নেত্রকোনা প্রতিনিধি

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় ‘সমাবেশে বাধা দেওয়ায়’ পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ১৩ পুলিশ আহত হয়েছেন।

গতকাল দুপুরে কেন্দুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে বলে জানায় পুলিশ। তবে ছাত্রদলের দাবি, তাদের সমাবেশ শেষের দিকে অকস্মাৎ পুলিশ তাদের লাঠিপেটা শুরু করে। আহতদের নেত্রকোনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরা হলেন এসআই সামেদুল হক, সঞ্জয় সরকার, আল আমিন, আবুল বাশার, আবদুল কাদের, এএসআই জালাল আহমেদ, কনস্টেবল সুমন মিয়া, মিজানুর রহমান, জাকির হোসেন, আবুল খায়ের, সোহেল রানা, আবদুল কুদ্দুস ও রফিকুল ইসলাম। পুলিশের দেওয়া তথ্যমতে— বেলা ১২টার দিকে ছাত্রদল কেন্দুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কথা ভেবে তাদের বাধা দেওয়া হয়। এ সময় ছাত্রদলের অন্তত ৩০০ নেতা-কর্মী লাঠিসোটা নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। পুলিশ বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে আশ্রয় নিলে সেখানেও তারা হামলা চালিয়ে মারধর করে পুলিশদের। পরে কেন্দুয়া থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে। আহত পুলিশদের প্রথমে কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের নেত্রকোনা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ব্যাপারে জেলা ছাত্রদল সভাপতি ফরিদ হোসেন বাবু বলেন, তাদের সমাবেশ শেষের দিকে। ওই সময় হঠাৎ পুলিশ তাদের ওপর লাঠিপেটা শুরু করে। এতে তিনি নিজে, জেলা ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক অনিক মাহবুব চৌধুরীসহ তিনজন আহত হন। পরে গ্রামবাসী ও ছাত্রদল নেতা-কর্মীরা পুলিশকে প্রতিরোধ করে বলে জানান তিনি। এদিকে, স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মামলার ভয়ে আহত ছাত্রদলকর্মীরা সরকারি কোনো হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেনি। তারা বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow