Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২২:৫৯
ঢাকা বারে ভরাডুবি আওয়ামীপন্থিদের
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা আইনজীবী সমিতির ২০১৭-১৮ সেশনের কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনে সরকার সমর্থিত আইনজীবীদের সাদা প্যানেলের ভরাডুবি হয়েছে। এ নির্বাচনে ২৭টি পদের মধ্যে বিএনপি সমর্থিত নীল প্যানেল সভাপতি-সম্পাদকসহ ২১টিতে জয় পেয়েছে।

বুধ ও বৃহস্পতিবার ভোট গ্রহণ শেষে শুক্রবার শেষরাতে ফলাফল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনে মোট ১৬ হাজার ১৯৭ জন ভোটারের মধ্যে ৮ হাজার ৯১০ জন আইনজীবী ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। নীল প্যানেল থেকে বিজয়ীরা হলেন সভাপতি পদে মো. খোরশেদ আলম, সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. রুহুল আমিন ও কাজী মো. আবদুল বারিক, সাধারণ সম্পাদক পদে আজিজুল ইসলাম খান বাচ্চু, সিনিয়র সহ-সাধারণ সম্পাদক মো. সারয়ার কায়সার রাহাত, সহ-সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ নজরুল ইসলাম, লাইব্রেরি সম্পাদক আবুল কালাম আযাদ, দফতর সম্পাদক মো. আফানুর রহমান রুবেল ও ক্রীড়া সম্পাদক মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম কাইয়ুম। এ ছাড়া এই প্যানেল থেকে কার্যনির্বাহী সদস্য পদে ১২ জন নির্বাচিত হয়েছেন। অন্যদিকে কোষাধ্যক্ষসহ ছয়টি পদ পেয়েছে সাদা প্যানেল। এই প্যানেল থেকে বিজয়ীরা হলেন কোষাধ্যক্ষ পদে মো. হাসিবুর রহমান দিদার, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আফরোজা ফারহানা অরেঞ্জ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক পদে প্রহ্লাদ চন্দ্র সাহা পলাশ। এ ছাড়া এই প্যানেল থেকে কার্যনির্বাহী সদস্য পদে তিনজন নির্বাচিত হয়েছেন। আদালত সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে সাদা প্যানেলের ভরাডুবির পেছনে উপযুক্ত প্রার্থী নির্ধারণ নিয়ে কোন্দল ও বিলম্ব এবং স্বেচ্ছাচারিতাসহ বিভিন্ন কারণ রয়েছে। এ ছাড়া ঢাকার বিভিন্ন আদালতে সাধারণ আইনজীবীদের সঙ্গে রাষ্ট্রপক্ষের সরকার সমর্থক আইনজীবীদের দুর্ব্যবহারও একটি বড় কারণ। আওয়ামীপন্থি আইনজীবীদের নেতা ও ঢাকা মহানগর আদালতের পিপি আবদুল্লাহ আবু এ বিষয়ে বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে অনৈক্য, উপযুক্ত প্রার্থী নির্ধারণে ব্যর্থতার কারণেই আমাদের প্যানেলের পরাজয় ঘটেছে। ’ বিদায়ী সভাপতি (সাদা প্যানেল) সাইদুর রহমান মানিক বলেন, ‘আওয়ামীপন্থি আইনজীবীদের দুটি গ্রুপের মধ্যে সমন্বয়ের অভাব, মাঝপথে প্রার্থিতা পরিবর্তন ও আঞ্চলিকতাও এই পরাজয়ের অন্যতম কারণ। ’

up-arrow