Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৪১
বসুন্ধরায় শুরু এশিয়ান এলপিজি সামিট
নিজস্ব প্রতিবেদক
বসুন্ধরায় শুরু এশিয়ান এলপিজি সামিট
ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় আয়োজিত ৪র্থ এলপিজি সামিটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, এলপিজি ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি সালমান এফ রহমান, বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। —বাংলাদেশ প্রতিদিন

দেশের একমাত্র আন্তর্জাতিক মানের কনভেনশন ভেন্যু ‘ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা’ এখন নবায়নযোগ্য এনার্জি সেক্টর সংশ্লিষ্ট পেশাদার, চিন্তাবিদ, গবেষক এবং উৎসাহী ব্যক্তিবর্গের পদচারণায় মুখর। গতকাল কনভেনশন সিটিতে শুরু হয়েছে দুই দিনব্যাপী এলপিজি সেক্টরের সবচেয়ে বড় আয়োজন ‘চতুর্থ এলপিজি সামিট’, যেখানে অংশ নিচ্ছে দেশের শীর্ষস্থানীয় সব এলপিজি ব্র্যান্ড।

আজ সামিটের শেষ দিন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, সম্মানিত অতিথি ছিলেন এলপিজি ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশন  অব বাংলাদেশের সভাপতি ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর বেসরকারি খাত উন্নয়নবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী, বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান, বিশ্ব এলপিজি অ্যাসোসিয়েশনের পরিচালক ডেভিড টালের, ইস্ট কোস্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান আজম জে চৌধুরী, ওমেরা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের এজিএম তানজিম চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, দেশে প্রাকৃতিক গ্যাসের ওপর চাপ এবং অপচয় কমাতে বিকল্প হিসেবে বাসা-বাড়ি ও পরিবহন খাতে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলপিজি) ব্যবহারে জোর দিচ্ছে সরকার। আগামী দুই বছরের মধ্যে দেশের ৭০ শতাংশ বাড়িকে এলপি গ্যাসের আওতায় আনা হবে। তাই এই খাতের দুর্নীতি বন্ধে এবং দাম নিয়ন্ত্রণে আগামী দুই মাসের মধ্যে নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে। দেশের প্রাইভেট সেক্টরের সর্বপ্রথম এলপিজি ব্র্যান্ড বসুন্ধরা এলপিজি এই আয়োজনের গোল্ড স্পন্সর। উল্লেখ্য, বসুন্ধরা এলপিজি বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়িক গ্রুপ ‘বসুন্ধরা গ্রুপ’-এর একটি অঙ্গপ্রতিষ্ঠান। এই আয়োজনে নিজেদের সম্পৃক্ততা সম্পর্কে বলতে গিয়ে বসুন্ধরা গ্রুপ-এর ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান বলেন, সামনের দিনগুলোতে এনার্জি নিয়ে যে ক্রাইসিস এবং এর ক্রমবর্ধমান চাহিদা আমাদের সবার জন্য অপেক্ষা করে আছে তা নিয়ে এলপিজি সেক্টরের পুরোধা হিসেবে আমরা ভাবছি। পাশাপাশি এই সেক্টরের যথাযথ উন্নয়ন নিয়েও আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এই ভাবনা থেকেই আমরা এগিয়ে এসেছি এই আয়োজনের সঙ্গে নিজেদের যুক্ত করতে। এই আয়োজনকে সফল করার দায়িত্ব এখন আপনাদের সবার। এলপিজি ব্যবসায় বিনিয়োগ বাড়ানোর বিষয়ে সালমান এফ রহমান বলেন, দেশের বড় বড় কোম্পানিগুলো এলপিজি ব্যবসায় বিনিয়োগ করছে। কিন্তু দামের তারতম্য নিয়ে প্রায়ই অভিযোগ পাওয়া যায়। এ জন্য অঞ্চলভেদে এলপিজি ব্যবসায়ী কোম্পানির জন্য অভিন্ন দাম নির্ধারণের চিন্তা করছে এলপিজি ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশন। সামিটে দেশের প্রথম এবং সর্ববৃহৎ এলপিজি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরাসহ প্রায় ৬৩টি দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানগুলো এলপি গ্যাস বাজারজাতসহ সিলিন্ডার ও অন্যান্য খুচরা যন্ত্রাংশের উৎপাদক হিসেবে কাজ করছে। গতকাল আইসিসিবির চতুর্থ হল ‘নবরাত্রী’তে গিয়ে দেখা যায়, বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের স্টলে বিদেশি এলপিজি কোম্পানির প্রতিনিধিকে নিজেদের পণ্য এবং সেবার মান সম্পর্কে ধারণা দিচ্ছেন বিজনেস, অপারেশনস অ্যান্ড প্ল্যানিং-এর ডিজিএম প্রকৌশলী মো. জাকারিয়া জালাল এবং বিক্রয় বিভাগের প্রধান মির টি আই ফারুক রিজভী। দুই দিনের এই সামিট সকাল ৯টা থেকে ৬টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

up-arrow